শিরোনাম:

যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে শারীরিক নির্যাতন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি
প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ১২ অক্টোবর ২০১৭, ০৮:১৪
অ-অ+
যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে শারীরিক নির্যাতন
প্রতীকী ছবি

বরিশাল: যৌতুকের জন্য নিজের স্ত্রীর শরীরে বৈদ্যুতিক ইস্ত্রির ছ্যাঁকা দিয়েছেন পাষন্ড স্বামী। এ ঘটনায় ৫ জনকে অভিযুক্ত করে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বুধবার (১১ অক্টোবর) বরিশালের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ সুদীপ্ত দাসের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলাটি দায়ের করা হয়। নগরীর ভাটিখানা সাহা পাড়া এলাকার নির্যাতিতা ফেরদৌসি খান বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। 

মামলায় তার স্বামী কাউনিয়া ব্রাঞ্চ রোড এলাকার বাসিন্দা নাজমুল হুদা, শ্বশুর রেজাউল ইসলাম, শাশুড়ি ডালিয়া ইসলাম, ননদ তামান্না বিনতে ইসলাম ও ভাসুর নূরুল হুদা শাওনকে অভিযুক্ত করা হয়। 

তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগে তিনি বলেন, ২০০৯ সালের ১৯ নভেম্বর নাজমুলের সাথে তার বিয়ে হয়। ৩ ভরি স্বর্ণ দিয়ে তার মা তাকে তুলে দেন। বিয়ের পর নাজমুল তার সব স্বর্ণালঙ্কার হাতিয়ে নেন। বিয়ের কিছুদিন যেতে না যেতেই অভিযুক্তরা তার কাছে ৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে না পেয়ে তাড়িয়ে দেয়। এ অভিযোগে ঢাকা সিএমএম আদালতে মামলা দায়ের করলে মীমাংসার শর্তে নাজমুল জামিন পায় এবং পুনরায় সংসার শুরু করেন। তাদের দুটি পুত্র সন্তান হয়। পরে অভিযুক্তরা পুনরায় যৌতুকের লোভে বেপরোয়া হয়ে ওঠে। 

তারপর তারা ফেরদৌসির কাছে ৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। কিন্তু ফেরদৌসি অপারগতা প্রকাশ করলে একমাস পূর্বে বেধড়ক পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। চিকিৎসা নিয়ে কিছুটা সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরলে অভিযুক্তরা আরও ক্ষিপ্ত হয়। গত ৪ অক্টোবর দাবিকৃত যৌতুকের টাকা চায়। দিতে অস্বীকার করলে প্রথমে কিল-ঘুষি দেয়। এক পর্যায়ে পাষন্ড স্বামী তার বাম হাতে উত্তপ্ত বৈদ্যুতিক ইস্ত্রি চেপে ধরে হাত ঝলসে দেয়। পরে তার ডাক-চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠায়। কিছুটা সুস্থ হয়ে আদালতে এসে মামলা দায়ের করলে আদালত বিসিসির ৭নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলরকে তদন্ত সাপেক্ষে প্রতিবেদন দাখিলের আদেশ দেন।

ব্রেকিংনিউজ/এমএস