শিরোনাম:

ফয়সাল হাবিব সানি’র প্রেমের কবিতা

শিল্প-সাহিত্য ডেস্ক, ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি
প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ০৮ অগাস্ট ২০১৭, ০১:৪৪
অ-অ+
ফয়সাল হাবিব সানি’র প্রেমের কবিতা

১. প্রেম 
চাঁদ তুমি ঘুমিয়ে যাও, ঘুমাও নিশি মাঝ
ডেকোনা আমারে, ডেকোনা আর, ডেকোনা আমারে আজ।
আমিও ঘুমায় ঘুমের মতো তবু...
ঘুমেও জাগ্রত আঁখি,
হে, প্রেম! তুমি নিয়ে যাও সব; দিয়ে যাও শুধু ফাঁকি!
নিয়ে যাও আমার সত্তাটুকুও, ফেলে রাখো কেবল ‘আমি’
প্রেম তুমি বুকের ওপর কিভাবে ওঠো নামি! 
কাছেতে রয়েও এলে না কাছে, দূরত্ব রইলো বৈকি
মাঝে মাঝে কিসের কাঁটা বিঁধে বুকে, প্রেম তোমারও এমন হয় কি!
কাছে না পেলেও প্রেম তুমি ভেতরে বেঁধেছো বাসা
ভালো বাসা নাকি জানিনা আমি, তবে কি এক ‘ভালোবাসা’!

তাই প্রেম
শূন্য থেকেই পূর্ণ হলেম!
আমি দূর থেকেই না হয় লভঃ মমঃ পূর্ণতা
শেষে জেনেছি তোমার কাছেই, ‘বিরহে প্রেম, মিলনে শূন্যতা’।  
  
২. আরাধনা

সুহাসিনী প্রচ্ছন্ন রোদ হবো
তারপর দু’ঠোঁট মেলে শুষে নেবো পৃথিবীর সমস্ত ঘ্রাণ;
এ আমার এক আরাধনা!
আর এতো ঘ্রাণ বুকে জমা করে জ্ঞানরহিত হয়ে পড়লে 
তোমার বুকেই ঠিকরে পড়ব নারী-
তোমার বুকের নীল কুটিরেই খুঁজে নেবো 
আমার অন্তিম আশ্রয়, বুঝে নেবো সবুজ ঊর্ধ্বশ্বাস…
এ আমার আরেক আরাধনা!

৩. প্রেমকাক

প্রেম তুমি যেন এক কাক
ডেকে ডেকে উড়ে গেছো শুন্যে…
কলঙ্ক ভেবে তাড়িয়েছি তোমায়।
কিন্তু কলঙ্ক হয়েছে আমার
শুধু আর শুধুই!
এখন তুমি এক নীরব ভায়োলিনের মতো বাজতে থাকা কেবলই আমার ভেতরের নিস্তব্ধ ক্রন্দন…

৪. নীলিমা এখন কেমন আছে?

মেয়েটির নাম কি নীলিমা?
নীলিমা বলেই তো ডাক দিলো সকলে
আমিও ডাকলাম সে নাম ধরেই-
কিন্তু নীলিমা তো মুখ ফিরে তাকালো না একটিবারও; চোখ ফেরালো না আমার দিকে!
আমি নীলিমাকে ডেকেছিলাম আমার ভেতরে! হৃদয়ে কি এক তুমুল আওয়াজ তুলে ডেকেছিলাম নীলিমা নীলিমা বলে।
সে আওয়াজ হয়তো কেবলই খেলা করেছে আমার রক্তে, রক্ত থেকে হৃৎপিণ্ডে, হৃৎপিণ্ড থেকে আমার অস্তিত্বে, অস্তিত্ব থেকে রক্তে...
আমার রক্তের মধ্যে প্রবাহিণী তটিনীর তরঙ্গ ন্যায় প্রবল বেগে কিভাবে যে খেলা করেছে সে নাম ও সে ডাক!

তারপর...
তারপর- নীলিমা কোথায় যেন হারিয়ে গেলো!
সুদূর আকাশের গভীর নীলিমার চোখে চোখ মেলে ধরে, আকাশের হৃদয়ে হৃদয়কে সমর্পণ করে আজও খুঁজে চলেছি নীলিমাকে...
যদি আকাশের গভীর নীলিমার মাঝে চোখ রাখতে রাখতে দেখতে পাই নীলিমাকে; দেখা পেয়ে যায় নীলিমার।
আমি যে কিছুই দেখিনি তার-
তবু ষোড়শী যৌবনবতীর মতো সে নীলিমা এখনও আমাতে দংশিত প্রেম আর যৌবনোচ্ছ্বল এক দুরন্ত উঠতি কিশোরী।

আচ্ছা, সে এখন কেমন আছে?
কেউ কি জানো-
নীলিমা এখন কেমন আছে?

৫. প্রিয়তমা, তুমি ভুলে যাও

প্রিয়তমা, তুমি ভুলে যাও
এ ফুল আমার নয়;
সদ্য বনে ফোঁটা ফুল তুলে এনে আমি বলতে পারিনা-
এ ফুল আমার। 
প্রিয়তমা, এ ফুল আমার নয়।

যদি সত্যিই ভালোবাসো, তবে আরও কাছে এসো, কাছো এসে আরও ভেতরে-
তুমি আরও ভেতরে এসো। 
ভেতরে আসলেই পেয়ে যাবে অনাবিল যৌবন, অনন্ত মহিমা, প্রাণোদীপ্ত উচ্ছ্বল লাস্যময়ী সুস্নিগ্ধ ফুল; আমার হৃদয়সত্তায় প্রেমের বীজে সৃষ্ট শোভিত ‘হৃদয়ফুল’। 
তাই যদি ভালোবাসো, তুমি ভালোবাসা-
তবে ভেতরে আমার তোমাকে তোমার গড়ো;
আরও কাছে এসো-
প্রিয়তমা, কাছে এসে ভেতরের, আরও ভেতরের ভেতরে প্রবেশ করো।

লেখক: তরুণ কবি ও সাংবাদিক।

ব্রেকিংনিউজ/এমআর