শিরোনাম:

জাবিতে খেলা নিয়ে সংঘর্ষ, উত্তেজনা

জাবি করেসপন্ডেন্ট,
ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি
প্রকাশিত : বুধবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৭, ০৭:৪০
অ-অ+
জাবিতে খেলা নিয়ে সংঘর্ষ, উত্তেজনা

জাবি: ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) দুই হলের শিক্ষার্থীদের মাঝে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ৭ শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। আহতদের মধ্যে জনি লাংবাং নামের এক শিক্ষার্থীর অবস্থা গুরুতর বলে কর্তব্যরত চিকিৎসক নিশ্চিত করেছে। 

বুধবার (৬ ডিসেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে ‘চ্যান্সেলর কাপ’ ফুটবল খেলা চলাকালীন এ ঘটনা ঘটে। 

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের মীর মশাররফ হোসেন হলের খেলোয়াড় সালমান শাহ (ইতিহাস-৪২) বল নিয়ে গোল দেয়ার জন্য এগিয়ে গেলে আল বেরুনী হলের খেলোয়াড় জনি লাংবাংয়ের বাধার মুখে সালমান মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। 

রেফারি তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্তে জনিকে হলুদ কার্ড দেখায়। তবে সালমান জনিকে লাথি দেয়। জনিও সালমানকে পাল্টা লাথি দেয়। এরপর মীর মশাররফ হোসেন হলের খোলোয়াড় মাসুম এগিয়ে এসে জনিকে ঘুষি মেরে মাটিতে ফেলে দেয়। বিষয়টি উভয় পক্ষের খেলোয়াড় ও দর্শকদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে ব্যাপক সংঘর্ষে রূপ নেয়। 

এতে মীর মশাররফ হোসেন হলের সালমান, ফয়সাল (সরকার ও রাজনীতি-৪৫), অন্তর (নৃবিজ্ঞান-৪৩), এনায়েত (ইংরেজি-৪৬), আল বেরুনী হলের জনি, আব্দুল্লাহ আল মামুন (আন্তর্জাতিক সম্পর্ক-৪৩), জামশেদ আলম (আন্তর্জাতিক সম্পর্ক-৪৩) আহত হয়। 
বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা কেন্দ্রের ডা. শামছুল আলম লিটন বলেন, আহতদেরকে প্রাথমিকভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেলে চিকিৎসা প্রদান করা হয়েছে। গুরুতর আহত হওয়ায় জনি লাংবাংকে সাভারের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। সে গুরুতরভাবে মাথায় আঘাত পেয়েছে। 

খেলা পরিচালনা কমিটির সভাপতি অধ্যাপক কৌশিক সাহা বলেন, ‘আমরা রেফারির সাথে আলোচনা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবো।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক তপন কুমার সাহা বলেন, ‘মারধরের বিষয়টি আমরা তদন্ত করছি । তদন্ত শেষে প্রকৃত দোষীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে।’
 
এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত উভয় হলের আবাসিক শিক্ষার্থীদের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। আল বেরুনী হলের আবাসিক শিক্ষার্থীরা লাঠি সোঠা নিয়ে হলের সামনে মহড়া দিচ্ছেন। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন চত্বরে উত্তেজনা অবস্থা বিরাজ করছে। যে কোনও মুহূর্তে বড় ধরনের সংঘর্ষের আশঙ্কা করছে দুই হলের আবাসিক শিক্ষার্থীরা। তবে যে কোনও অপ্রীতিকর অবস্থা মোকাবিলা করার জন্য প্রক্টরিয়াল বডির তৎপরত রয়েছে ।

ব্রেকিংনিউজ/এমএ/এনএআর