শিরোনাম:

বসন্তে রঙিন রাবি

সাঈদ সজল, রাবি করেসপন্ডেন্ট
প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮, ০৬:৫৮
অ-অ+
বসন্তে রঙিন রাবি

শীতের রুক্ষতাকে হার মানিয়ে যৌবনপ্রাপ্ত দখিণা হাওয়া প্রকৃতিতে তুলেছে গুঞ্জন- ‘বসন্ত এসে গেছে’। মনে করিয়ে দিচ্ছে পয়লা ফাল্গুনের কথা। দখিণা বাতাসের মাতোয়ারা গন্ধে নবফাল্গুনে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) প্রকৃতিও মেতে উঠেছে ঋতুরাজ বসন্তের বন্দনায়। মতিহারের সবুজ চত্বরের তরু থেকে তরুণ-তরুণী সবাই মেতেছে দীপ্ত প্রাণের উচ্ছ্বলতায়। 

ক্যাম্পাস জুড়ে বাগানগুলোতে গোলাপ, গাঁদা, ডালিয়া, জিনিয়া, বাতাবি লেবুসহ বাহারি ফুলে সুবাস ধূলিধূসর রাবি ক্যাম্পাসে বসন্তের আগমনী বার্তা জানাচ্ছে। এ যেন শীতের বার্ধক্য আর জড়তা মুছে প্রাণের সঞ্চরণ জেগেছে মতিহারের প্রকৃতিতে। বসন্তের রঙে রঙিন রাবির শিক্ষার্থীরাও। তরুণদের গায়ে বাহারি পাঞ্জাবি, তরুণীরা পরেছে বাসন্তি শাড়ি আর মাথায় ফুলের মুকুট। শিশুরাও আজ রঙিন, বৃদ্ধরাও পেয়েছে বসন্তের স্নিগ্ধতা। 

বসন্তকে বরণ করে নিতে ফাগুনের প্রথম প্রহরেই বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা প্রাঙ্গণে আয়োজন করা হয় বসন্ত বরণ ও পিঠা উৎসব। বসন্ত বরণে ক্যাম্পাসে শোভাযাত্রা বের করে চারুকলার শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণের মুক্তমঞ্চে অরনীর আয়োজনে চলে সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা। চারুকলার মুক্তমঞ্চে দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পিঠা উৎসব। থরে থরে সাজানো পিঠার স্টলগুলোতে সাজানো নানা রঙের নানা স্বাদের পিঠে-পুলি। 

বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে দল বেঁধে জড়ো হতে থাকে তরুণ-তরুণীরা। অনেকে এসেছেন প্রিয়জনকে সঙ্গে নিয়েও। শুধু রাবির শিক্ষার্থীরাই নয়, বাইরের তরুণ-তরুণীরাও এসব অনুষ্ঠান-আয়োজনে এসে যোগ করেছেন নতুন মাত্রা। 

বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সানজিদা রাহমান স্বর্ণা বসন্তের অনুভূতি জানাতে গিয়ে ব্রেকিংনিউজকে বলেন, ‘রাবিতে কোনও উৎসব মানেই সেটা রঙিন আর জাঁকজমকপূর্ণ হবে। তাই এ ধরনের উৎসবগুলোতে পড়াশোনার একঘেয়েমি কাটাতে ছুটে চলে আসি এ বিদ্যাপীঠে। উপভোগ করি এখানকার প্রত্যেকটি আয়োজন। নিজেকে নতুন করে খুঁজি। নব উচ্ছ্বাসে আন্দোলিত হই।’

অন্যদিকে, বসন্তবরণ উৎসবে সমান তালে উচ্ছ্বসিত রাবির বিদেশি শিক্ষার্থীরা। নেপাল থেকে পড়তে আসা জিলানী আনসারী বলেন, ‘রাবিতে উৎসবগুলো খুব ধুমধাম ভাবে পালিত হয়। এই বসন্তবরণ উৎসবে বাঙালি জাতির মানসমনের পরিচয় পাওয়া যায়। এই আয়োজনগুলো খুব ভালো লাগে, উপভোগও করি বেশ।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের বসন্তবরণ উৎসবকে ঘিরে রাবির নবীন শিক্ষার্থীদের মাঝে দেখা দিয়েছে প্রাণচাঞ্চল্য আর অবাক মুগ্ধতা। পাঞ্জাবি-শাড়ি পরে বন্ধুরা মিলে পুরো ক্যাম্পাস দাপিয়ে বেড়িয়েছে হই-হুল্লোড় করে। চারুকলা থেকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে যেখানেই চোখ রাখা যায়- যেন একমুঠো মুগ্ধতা নিয়ে দুচোখ ভরে সবাই উপভোগ করছেন রাবির বসন্তবরণের নানা আয়োজন। 

কথা হয় গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ১ম বর্ষের শিক্ষার্থী মেশকাত মিশুর সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘এরকম রঙিন আর উৎসবমুখর বসন্তবরণ নিয়ে এতো আয়োজন আগে কখনও প্রত্যক্ষ করিনি। যা দেখছি তাতেই বিমোহিত হচ্ছি। প্রাণভরে উপলব্ধি করছি আজকের এ বসন্ত  উৎসব।’ 

তবে রাবির সাধারণ শিক্ষার্থীদের প্রত্যাশা- এই বসন্ত উৎসব শুধু উৎসবেই যেন বাধা না পড়ে। বসন্ত যেন সবার মাঝে মানবিক গুণের বিকাশ ঘটায়। সবার মাঝে মেলবন্ধন সৃষ্টি করে। 

ব্রেকিংনিউজ/এসআর