শিরোনাম:

আমরা সালমানকে হত্যা করেছি: রিজভী

বিনোদন ডেস্ক
ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি
প্রকাশিত : রবিবার, ১৩ অগাস্ট ২০১৭, ০২:৪১
অ-অ+
আমরা সালমানকে হত্যা করেছি: রিজভী

ঢাকা: বাঙালির কাছে এক আবেগ আর ভালোবাসার নাম সালমান শাহ্‌। আর এই আবেগকে নিয়ে জঘন্য প্রতারণা করেছেন সালমান শাহ্‌ হত্যা মামলার সপ্তম আসামি  রুবি সুলতানা। তিনি এক ভিডিও বার্তায় বোমা ফাটালেন সালমান শাহ্‌ হত্যা বা আত্মহত্যা রহস্য ইস্যুতে। তিনি দাবি করেন তিনি সালমান শাহ্‌র খুনিদের চেনেন জানেন। এরপর গণমাধ্যমগুলোতো তোলপাড় শুরু হয় এই ভিডিও নিয়ে।

কিন্তু দিন ঘুরতে না ঘুরতেই পুরোই ভোল বদলে ফেলেন আমেরিকান প্রবাসী এই রুবি। কিন্তু একই ঘটনা ১৯৯৭ সালেও একবার ঘটে।  সেই বছর ১৯ জুলাই সালমানের বাবার ডিওএইচএস এর বাসায় রিজভী আহমেদ ওরফে ফরহাদ নামের এক যুবকের উদয় হয়। সালমান শাহর বাবা তখন ঐ যুবককে ক্যান্টনমেন্ট থানা পুলিশের কাছে সোপার্দ করেন। 

পরে ঐ যুবক ২২ জুলাই ১৯৯৭ আদালতে জানায় যে, সে এবং তার সহযোগিরা সালমান শাহ্‌কে হত্যা করে। তার সেই স্বীকারোক্তি রেকর্ড করা হয়েছিল তখন।

কিন্তু দু:খের বিষয় এই যে পরবর্তীতে যখন তদন্তকারী কর্মকর্তা রিজভীকে জেলখানায় জিজ্ঞাসাবাদ করে তখন সে জানায় যে সালমান শাহ হত্যা বিষয়ে কিছুই জানে না সে। রিজভী এখন কোথায় আছে কেমন আছে কেউ বলতে পারছে না।

এদিকে রিজভী ১৬৪ ধারায় দেয়া তার জবানবন্দিতে বলেছিল, ‘সালমানকে ঘুমাতে দেখে তার ওপর ঝাপিয়ে পড়ে, ফারুক পকেট থেকে ক্লোরোফোমের শিশি বের করে এবং সামিরা তা রুমালে দিয়ে সালমানের নাকে চেপে ধরে।

ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে মামলার তিন নম্বর আসামি আজিজ মোহাম্মদ এসে সালমানের পা বাধে এবং খালি ইনজেকশন পুশ করে। এতে সামিরার মা ও সামিরা সহায়তা করে।

পরে ড্রেসিং রুমে থাকা মই নিয়ে এসে, ডনের সাথে আগে থেকেই নিয়ে আসা প্লাস্টিকের দড়ি আজিজ মোহাম্মদ ভাই সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলায়।’

রিজভী আরো বলেছিল যে, সালমানকে হত্যা করতে সামিরার মা লাতিফা হক, ডন, ডেভিড, ফারুক, জাভেদের সঙ্গে ১২ লাখ টাকার চুক্তি করেন। চুক্তিতে উল্লেখ ছিল, সালমানকে শেষ করতে কাজের আগে ৬ লাখ ও কাজের পরে ৬ লাখ দেয়া হবে।

ব্রেকিংনিউজ/অমৃ