শিরোনাম:

সেই তরুণীর ছবি ভুয়া!

বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০১৭, ১১:২৫
অ-অ+
সেই তরুণীর ছবি ভুয়া!
ছবি: ওয়েবসাইট

কিছুদিন আগেই এক তরুণী দাবি করেন অ্যাঞ্জেলিনা জোলি হতে গিয়ে ৫০ বার অস্ত্রোপচার করে তার চেহারা ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছে। এ দাবির স্বপক্ষে সে কয়েকটা ছবিও প্রকাশ করেন সাহার তাবার নামে ১৯ বছর বয়সী তরুণী।
 
তবে এবার অসংখ্য মানুষের প্রশ্নের মুখে প্রকাশ করে দিয়েছেন এ ঘটনার প্রকৃত তথ্য।
 
কয়েকদিন আগে তিনি জানান, তিনি অ্যাঞ্জেলিনা জোলির সবচেয়ে বড় ভক্ত। দাবি করেন, তার মত জোলির ভক্ত আর কেউ নেই। তাই যে করেই হোক মার্কিন অভিনেত্রীর মত দেখতে হওয়া চাই তাকে।
 
অ্যাঞ্জেলিনা জোলির মত দেখার জন্য প্রথমে ডায়েট শুরু করেন ইরানের সাহার তাবার নামে ওই কিশোরী। মাত্র ৪০ কেজি ওজন নিয়ে এরপর জিমে যাওয়া শুরু করেন তিনি। অতিরিক্ত ডায়েটের ফলে সাহার ওজন কম বলে জানিয়ে দেন চিকিত্সক। কিন্তু এর পরেও ৫০টি অস্ত্রোপচার করান সাহার তাবার। এছাড়া তিনিকন্ট্যাক্ট লেন্স ব্যবহার শুরু করেন। তাতেও কাজ হয়নি। তার চেহারা বরং আরো ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠে।
 
ইতোমধ্যেই ইরানের ওই কিশোরী সোশ্যাল মিডিয়ায় জনপ্রিয় হয়েছেন। ইনস্টাগ্রামে তার ফলোয়ারের সংখ্যা ৩ লাখ ছাড়িয়েছে। তবে সাহারের ওই লুক নিয়ে তাকে দেখে সবাই অত্যন্ত দুঃখিত হয়েছেন। এক পর্যায়ে তার বিষয়ে খোঁজ নিতে চেষ্টা করেন বহু মানুষ। এতে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েন তিনি।
 
শেষ পর্যন্ত বহু প্রশ্নের চাপে তিনি নিজের সেই লুকের রহস্য ফাঁস করেছেন। এমনকি নিজের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টও পাবলিক থেকে প্রাইভেট করে দিয়েছেন। এছাড়া ৫০ বার অস্ত্রোপচারের তথ্যও সঠিক নয় বলে জানা গেছে।



অনুসন্ধানে জানা গেছে, সে তরুণীর দাবি সত্য নয়। তিনি স্বাভাবিক চেহারাতেই আছেন বলে জানা গেছে। তাহলে সে ভয়ঙ্কর ছবিগুলো কোথা থেকে এল? সে তরুণীর দেওয়া ছবিগুলো বিশ্লেষণ করে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন সেগুলোতে ফটোশপের মতো ইমেজ এডিটিং সফটওয়্যার ব্যবহার করা হয়েছে। আর এ থেকে আগেই অনেকে সন্দেহ করেছিলেন। এবার সে সন্দেহ প্রমাণিত হলো। তিনি স্বীকার করেছেন, ছবিগুলো মেকআপ ও ইমেজ এডিটিংয়ের মাধ্যমে তৈরি করা। বহু মানুষের প্রশ্নের মুখে সে তরুণী শেষ পর্যন্ত নিজের একটি ছবিও প্রকাশ করেছেন।
 
ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি/ এমএইচ