শিরোনাম:

দেশে শীতের প্রকোপ বাড়বে

নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত : বুধবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৭, ০২:০৩
অ-অ+
দেশে শীতের প্রকোপ বাড়বে

ঠান্ডায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়ছে প্রায় সারা দেশ। একটু একটু করে শীত জেঁকে বসতে শুরু করেছে। উত্তরাঞ্চলে তীব্র শীত পড়ছে। প্রতিদিন নামছে তাপমাত্রা। কুয়াশার চাদরে ঢাকা থাকছে দিনের বেশিরভাগ সময়। বিশেষ কোন কাজ না থাকলে সন্ধ্যার পর লোকজন ঘরের বাইরে যাচ্ছেনা। কুয়াশায় ঢাকা পড়েছে প্রকৃতি-পরিবেশ। রাজধানী ঢাকায়ও এখন পাওয়া যাচ্ছে শীতের আমেজ।

ঘূর্ণিঝড়, অতি ভারি বর্ষণ, আকস্মিক বন্যা, ভূমিধসের পর চলতি বছর বাংলাদেশে শীতের তীব্রতাও গতবছরের চেয়ে বেশি হতে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।

বাংলাদেশের আবহাওয়া অধিদপ্তরের জ্যেষ্ঠ আবহাওয়াবিদ আব্দুর রহমান জানান, গেল বছর তো তেমন শীত পড়েনি। পৌষের মাঝামাঝি সময়েও শীতের তীব্রতা ছিল না। এবার ভারতেও শীত বাড়বে; এর প্রভাব দেশেও থাকবে। গেল বছরের চেয়ে একটু বেশিই শীত পড়তে পারে।

সোমবার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল শ্রীমঙ্গলে- ১১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল টেকনাফে ৩০ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এ বছর আবহাওয়ার আচরণ ছিল গত কয়েক বছরের তুলনায় আলাদা। ঘূর্ণিঝড়-জলোচ্ছ্বাস, অস্বাভাবিক মাত্রায় বজ্রপাত, অতি ভারি বর্ষণ, আকস্মিক বন্যা এবং ৩৩ জেলায় বন্যা, ভূমিধসের মত একের পর এক প্রাকৃতিক দুর্যোগের মুখোমুখি হতে হয়েছে বাংলাদেশকে।

বাংলাদেশে ডিসেম্বর থেকে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত শীতের মৌসুম ধরা হয়। এ সময় শেষ রাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের উত্তরাঞ্চল এবং নদ-নদী অববাহিকায় মাঝারি বা ঘন কুয়াশা এবং অন্যান্য স্থানে হালকা থেকে মাঝারি কুয়াশা থাকে।

আবহাওয়া অধিদফতর বলছে, পঞ্জিকার খাতা ধরে ডিসেম্বরের শেষার্ধেই এবার শীত বাড়তে থাকবে। মাসের প্রথমার্ধে রাতের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের তুলনায় সামান্য বেশি থাকলেও মাসের শেষভাগে তা কমে আসবে।

আবহাওয়া অধিদফতরের পরিচালক সামছুদ্দিন আহমেদ জানান, এ মাসে বঙ্গোপসাগরে একটি লঘুচাপ সৃষ্টি হতে পারে, যা নিম্নচাপে পরিণত হওয়ার সম্ভাবনা আছে।

মাসের শেষার্ধে দেশের উত্তর, উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলে এক থেকে দুটি মৃদু (৮-১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস) বা মাঝারি (৬-৮ ডিগ্রি সেলসিয়সাস) শৈত্য প্রবাহ বয়ে যেতে পারে।

জানুয়ারির দীর্ঘমেয়াদী পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, এ মাসে দেশের উত্তর, উত্তর-পূর্বাঞ্চল, উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলে একটি মাঝারি (৬-৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস) অথবা তীব্র (৪-৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস) শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে।

এ সময় অন্যান্য জায়গায় এক থেকে দুটি মৃদু অথবা মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে। তবে সার্বিকভাবে জানুয়ারি মাসের গড় তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে ১ ডিগ্রি সেলসিয়সি বেশি থাকতে পারে।

ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি/ এমএইচ

সম্পর্কিত বিষয়ঃ   ভারত