শিরোনাম:

পঞ্চকুলায় অশান্তির নীল নকশা তৈরি করেছিল হানিপ্রীত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি
প্রকাশিত : বুধবার, ১১ অক্টোবর ২০১৭, ১২:১৫
অ-অ+
পঞ্চকুলায় অশান্তির নীল নকশা তৈরি করেছিল হানিপ্রীত

ঢাকা: ‌চলতি বছরের ২৫ আগস্ট পঞ্চকুলাতে গুরমীত রাম রহিম সিংয়ের গ্রেফতার নিয়ে যে অশান্তির সৃষ্টি হয়েছিল, তার নেতৃত্বেই ছিলেন বাবার পালিত কন্যা হানিপ্রীত ইনসান। হরিয়ানা পুলিশের বিশেষ তদন্তকারি দল গত ৬ ‌দিন ধরে হানিপ্রীতকে জেরা করে এই তথ্য জেনেছেন। মঙ্গলবারই আদালতে পুলিশ এই তথ্য জানায়। তদন্তে পুলিশ জানতে পারে, ১৭ আগস্ট সিরসাতে পঞ্চকুলাতে কীভাবে অশান্তি ছড়ানো হবে তা নিয়ে আলোচনা হয় এবং তখনই ২৫ আগস্ট পঞ্চকুলার অশান্তির নীল নকশা তৈরি করা হয়।
 
হানিপ্রীতকে জেরা করে পুলিশ জানতে পারে, পঞ্চকুলার কোথায় কোথায় অশান্তি হবে আগে থেকেই তার গাইড ম্যাপ তৈরি করেছিল স্বয়ং হানিপ্রীত। ডেরার পক্ষ থেকে হানিপ্রীতকেই এই অশান্তি ছড়ানোর দায়িত্ব এবং তার জন্য যা অর্থ লাগবে দু‌টোই দেয়া হয়েছিল। গাইড ম্যাপ সহ অন্যান্য তথ্য সবই হানিপ্রীতের ল্যাপটপে রাখা ছিল যা পুলিশ উদ্ধার করেছে। সূত্র মারফৎ জানা গিয়েছে, গাইড ম্যাপ সহ অন্যান্য তথ্যের পাশাপাশি হানিপ্রীতের ল্যাপটপে ডেরার আর্থিক লেনদেন সংক্রান্ত তথ্যও পাওয়া গিয়েছে। পুলিশ তদন্তে জানতে পারে, গুরমীত রাম রহিম সিংয়ের জেল যাওয়ার পর কোন কোন গোপন জায়গা থেকে বিপুল পরিমাণ অর্থ ডেরায় আসছে সে বিষয়ে অবগত ছিল হানিপ্রীত। তার মোবাইল হারিয়ে গিয়েছে বলেও পুলিশকে মিথ্যা বলেছিল হানিপ্রীত। কিন্তু হানিপ্রীতের সহযোগী রাম রহিমের গাড়ির চালকের স্ত্রী সুখদীপ কউর পুলিশকে জানায়, হানিপ্রীতের মোবাইল পাঞ্জাবের গ্রাম তার্ণ তারান অথবা উত্তরপ্রদেশের বিজনোরের কোথাও লুকিয়ে রাখা আছে।
 
তবে হরিয়ানা পুলিশের গঠন করা সিট এখনও পর্যন্ত ফেরার ডেরা নিয়ন্ত্রণকারী ডঃ আদিত্য ইনসান, পবন ইনসান এবং গোবি রামকে গ্রেফতার করতে পারেনি। তারা কোথায় লুকিয়ে থাকতে পারে সে বিষয়ে প্রাথমিকভাবে পুলিশ জানতে পারলেও এখনও সে বিষয়ে নিশ্চিত নয়। তাদের খোঁজ পাওয়ার জন্যই হানিপ্রীতের পুলিশি হেফাজতে থাকার মেয়াদ বাড়ানো হল। হানিপ্রীতই খোঁজ দিতে পারে ফেরার তিন ডেরা সদস্যের।
 
ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি/ এসএইচ