শিরোনাম:

বিচার বিভাগীয় সংকট নিয়ে জরুরি বৈঠকে মোদি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক,
প্রকাশিত : শুক্রবার, ১২ জানুয়ারী ২০১৮, ০৪:০১
অ-অ+
বিচার বিভাগীয় সংকট নিয়ে জরুরি বৈঠকে মোদি

বিচার ব্যবস্থার নিরপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে ভারতীয় সুপ্রিম কোর্টের চার বিচারপতির নজিরবিহীন বিদ্রোহে জরুরি বৈঠক ডেকেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

শুক্রবার (১২ জানুয়ারি) প্রবীণতম চার বিচারপতির সংবাদ সম্মেলনের পরপরই সারা দেশে শোরগোল পড়ে গেছে। তড়িঘড়ি বৈঠক ডেকেছেন নরেন্দ্র মোদি। ডেকে পাঠিয়েছেন কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদকে। বিচার বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদেরও ডাকা হয়েছে ওই বৈঠকে। 

শুক্রবার বিচারপতি জে চেমালেশ্বর, বিচারপতি কুরিুয়ান জোশেফ, বিচারপতি রঞ্জন গগৈ ও বিচারপতি মদন লকুর এই সংবাদ সম্মেলন করেন।
 
বিচারপতিদের অভিযোগ, সুপ্রিম কোর্টে গণতন্ত্র নেই। তা বাঁচাতে না পারলে দেশের গণতন্ত্র বিপন্ন হবে। সুপ্রিম কোর্টের কাজ ঠিকমতো হচ্ছে না। প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রকে বারবার নানা আবেদন করার পরও সাড়া পাওয়া যাচ্ছে না। এভাবে চললে গণতন্ত্র বিপন্ন হবে। 

সংবাদ সম্মেলনে নানা অসন্তোষের কথা জানিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের প্রবীণতম এই চার বিচারপতি। প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে বিদ্রোহ দেখিয়ে নজিরবিহীন এই সংবাদ সম্মেলন করেছেন তারা। দেশের আইনব্যবস্থার পীঠস্থানে এককথায় জরুরি অবস্থা ঘোষিত হয়েছে। 

সংবাদ সম্মেলনে বিচারপতি জে চেমালেশ্বর বলেন, ‘আমরা অনেকদিন ধরেই মনে করছি আমাদের কাজে হস্তক্ষেপ করা হচ্ছে। তাই বিষয়টি নিয়ে দেশবাসীকে অবগত করা প্রয়োজনীয় মনে করছি আমরা।’

দেশের প্রধান বিচারপতিকে পদচ্যুত করার কথা তাঁরা ভাবছেন কি না প্রশ্ন করা হলে চার বিচারপতি বলেন, এই মুহূর্তে তাঁরা তেমন কিছু ভাবছেন না। গোটা বিষয়টি বিবেচনার জন্য দেশবাসীর ওপর ছেড়েছেন তাঁরা। 

বিচারপতিরা বলেন, গত কয়েক মাসে অপ্রত্যাশিত অনেককিছু ঘটেছে বিচার বিভাগে। যার প্রেক্ষিতেই বাধ্য হয়ে তাঁরা সাংবাদিক সম্মেলন করছেন। এই সাংবাদিক সম্মেলন নজিরবিহীন ছিল। কারণ এর আগে এভাবে বিদ্রোহী হতে কোনও বিচারপতিকেই দেখা যায়নি। এই প্রথমবার কেউ সাংবাদিক সম্মেলন করে সুপ্রিম কোর্টের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিলেন। 

বিচারপতি জে চেমালেশ্বর প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রর পরেই গুরুত্বপূর্ণ মর্যাদায় রয়েছেন।  সুপ্রিম কোর্টে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন।

ব্রেকিংনিউজ/এনএআর