শিরোনাম:

রোহিঙ্গাদের জঙ্গিবাদে জড়ানোর শঙ্কা: সুজন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি
প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ১২ অক্টোবর ২০১৭, ০৩:২৭
অ-অ+
রোহিঙ্গাদের জঙ্গিবাদে জড়ানোর শঙ্কা: সুজন
ছবি: ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি

ঢাকা: রোহিঙ্গা সংকট দীর্ঘ হলে এই অঞ্চলে জঙ্গিবাদ ও উগ্রবাদ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। নিগৃহীত এ জনগোষ্ঠীকে স্বার্থন্বেষী মহল উগ্রবাদের পথে প্ররোচিত করতে পারে বলে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন সুশাসনের জন্য নাগরিকের (সুজন) সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার।

বৃহস্পতিবার (১২ অক্টোবর) সকাল ১০টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে সুজন আয়োজিত ‘রোহিঙ্গা সমস্যা: প্রেক্ষিত, বর্তমান পরিস্থিতি আর সম্ভাব্য করণীয়’ শীর্ষক এক গোলটেবিল বৈঠকে বক্তারা এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে সুজনের সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার বলেন, রোহিঙ্গা সংকটে সব দল নিজেদের অবস্থান ব্যক্ত করেছে। এক্ষেত্রে জাতি ঐক্যমত দরকার। তাহলে এ সমস্যাকে সমাধানের দিকে নিয়ে যাওয়া যাবে।

গোলটেবিল বৈঠকে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সুজনের নির্বাহী সদস্য আলী ইমাম মজুমদার। তিনি বলেন, বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের কেউ কেউ নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে যুক্ত হতে পারে। যা শুধু বাংলাদেশ নয়, পুরো অঞ্চলকেই অস্থিতিশীল করতে পারে। রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানের জন্য আমাদের সম্ভাব্য সকল পদক্ষেপ নিতে হবে।

তিনি বলেন, ভবিষ্যতে এ সমস্যা আরও জটিল আকার ধারণ করতে পারে। বিশ্বের অন্যান্য প্রান্তের বিভিন্ন ঘটনাবলির কারণে আন্তর্জাতিক মহলের দৃষ্টি অন্যদিকে সরে যেতে পারে। বাংলাদেশের পক্ষে প্রায় ১০ লাখ শরণার্থীর চাপ সহ্য করা দুরূহ হবে। ভয়াবহ নিরাপত্তাজনিত সমস্যার সৃষ্টি করতে পারে।

অনুষ্ঠানে সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান চৌধুরী বলেন, জাতিসংঘসহ বিভিন্ন দেশের অবস্থান বাংলাদেশের পক্ষে এসেছে। তবে রোহিঙ্গা নির্যাতন বন্ধে এবং তাদের ফিরিয়ে নেওয়ার ক্ষেত্রে সেটা সেভাবে কাজে আসেনি।

রোহিঙ্গা সমস্যায় সমর্থন আদায়ের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রয়োজনে চীন, রাশিয়া ও ভারতে সফর করতে পারেন বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

মানবাধিকারকর্মী হামিদা হোসেন বলেন, রাখাইন রাজ্যকে খালি করার স্বার্থে তারা রোহিঙ্গা নির্যাতন চালাচ্ছে। কারণ খালি করতে পারলে বিনিয়োগ আসবে। বিভিন্ন দেশ তাদের কাছে অস্ত্র বিক্রি করছে। সেটা বিক্রি বন্ধের জন্য আন্তর্জাতিক সংস্থার মাধ্যমে চাপ অব্যাহত রাখতে হবে।

গোলটেবিল আলোচনায় আরও বক্তব্য দেন- কলামনিস্ট সৈয়দ আবুল মকসুদ, রামসুর পরিচালক অধ্যাপক সি আর আবরার, সমাজকর্মী রেহানা সিদ্দিকী প্রমুখ।

ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি/ এইচ/ এমএইচ