শিরোনাম:

না.গঞ্জের ঘটনায় দোষীদের ছাড় নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ১৮ জানুয়ারী ২০১৮, ০৮:৩৩
অ-অ+
না.গঞ্জের ঘটনায় দোষীদের ছাড় নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
ফাইল ফটো

নারায়ণগঞ্জে ফুটপাতে হকার উচ্ছেদকে কেন্দ্র করে সংসদ সদস্য শামীম ওসমান ও মেয়র ডা.সেলিনা হায়াৎ আইভীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনার যথাযথ তদন্ত হচ্ছে জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ‘তদন্তের পরই দোষীদের শাস্তির আওতায় নিয়ে আসা হবে। কেউ ছাড় পাবে না।’

বৃহস্পতিবার (১৮ জানুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর তেজগাঁওয়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের কেন্দ্রীয় মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্র ৫০ শয্যা থেকে ১০০ শয্যায় উন্নীতকরণের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

সংঘর্ষের সময় অস্ত্রধারী এক ব্যক্তির ছবি গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলে তা নিয়ে সারা দেশে সমালোচনার সৃষ্টি হয়। এবিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘তদন্ত করে দেখা হচ্ছে কারা এতে জড়িত। অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে। কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। যারা অস্ত্র দেখিয়েছে, যারা নিজের হাতে আইন তুলে নিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

নারায়ণগঞ্জে পুলিশের সামনেই সংঘর্ষের ঘটনা এবং প্রকাশ্যে অস্ত্র প্রদর্শনের বিষয়ে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘দেখুন, একটা দুঃখজনক ঘটনা ঘটেছে। এ জন্য যা দরকার সেটা আমরা করছি। যারা অস্ত্র দেখিয়েছে, যারা নিজের হাতে আইন তুলে নিয়েছেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা অবশ্যই নেওয়া হবে। আমরা খতিয়ে দেখছি। ভিডিও ফুটেজ দেখে কারা করেছে তাদের ধরার জন্য প্রচেষ্টা নিচ্ছি এবং কী কারণে করল, তার পুরোপুরি একটা ইনকোয়ারি আমরা করছি।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমরা এটুকু অ্যাসিওরেন্স দিচ্ছি, দোষী কাউকে ছাড়ব না। যেই আইন ভঙ্গ করবে তার ব্যবস্থা অবশ্যই হবে। জনপ্রতিনিধির সঙ্গে ব্যক্তিগতভাবে আলোচনা করেছি। তাদের বলেছি এ ধরনের কর্মকাণ্ড আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী পছন্দ করেন না। তিন এগুলো গ্রাহ্যও করেন না।’

নারায়ণগঞ্জ শহরে ফুটপাতে হকার বসানো ও উচ্ছেদ নিয়ে গত মঙ্গলবার বিকেলে সংসদ সদস্য শামীম ওসমান ও মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর সমর্থকদের মধ্যে হামলা, সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ প্রায় ৩০০ ফাঁকা গুলি ও বেশ কিছু কাঁদানে গ্যাসের শেল ছুড়ে এক ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

ঘটনা তদন্তে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। এছাড়া সংঘর্ষের ঘটনায় বুধবার পৃথক সংবাদ সম্মেলন করেন আওয়ামী লীগের এমপি শামীম ওসমান ও সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী। এ ঘটনার জন্য তারা একে অপরকে দায়ী করেন।

ব্রেকিংনিউজ/এমআরএস/এমআর