শিরোনাম:

শেখ হাসিনার অধীনেই নির্বাচন চায় গণতন্ত্রী পার্টি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি
প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ১২ অক্টোবর ২০১৭, ০৪:২০
অ-অ+
শেখ হাসিনার অধীনেই নির্বাচন চায় গণতন্ত্রী পার্টি

ঢাকা: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনেই আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের দাবি জানিয়েছে গণতন্ত্রী পার্টি।

বৃহস্পতিবার (১২ অক্টোবর) বিকেলে আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে সংলাপে ২১ দফা সুপারিশ দিয়েছে দলটি।

গণতন্ত্রী পার্টির সভাপতি ব্যারিস্টার মোহাম্মদ আরশ আলীল নেতৃত্বে ১১ সদস্যের প্রতিনিধি দল সংলাপে অংশ নেয়। এতে সভাপতিত্ব করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নূরুল হুদা।

সংলাপ শেষে গণতন্ত্রী পার্টির সভাপতি  সাংবাদিকদের বলেন, ‍‌‌‘সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য ২১ দফা প্রস্তাব দিয়েছি। আমরা বলেছি- একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সংবিধানের আলোকে বর্তমান সরকারের বা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনেই অনুষ্ঠিত হবে।’

তবে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর সরকার দৈনন্দিন কার্যাবলি ছাড়া নীতিগত কোনও বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে না।

দলটির অন্য প্রস্তাবের মধ্যে রয়েছে- অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের লক্ষ্যে স্বরাষ্ট্র, জনপ্রশাসন, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় নির্বাচনকালীন সময়ে নির্বাচন কমিশনের অধীনস্ত থাকবে; নির্বাচনকালীন সময় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার্থে সংবিধানে নির্বাচন কমিশনকে যে ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে সে মোতাবেক ব্যবস্থা নেবে; যুদ্ধাপরাধে অভিযুক্ত ও জঙ্গি তৎপরতায় যুক্ত ব্যক্তি, মিয়ানমার থেকে আগত রোহিঙ্গাদের ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত না করা; প্রবাসীদের ভোটাধিকার; ফৌজদারি দণ্ডাদেশপ্রাপ্ত ব্যক্তিকে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে না দেয়া; নির্বাচনে ধর্মের সর্বপ্রকার ব্যবহার, সাম্প্রদায়িক প্রচার প্রচারণা ও ভোট চাওয়া শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে নিষিদ্ধ করা; স্বাধীনতা বিরোধী ও ধর্মীয় সাম্প্রদায়িক দলকে নিবন্ধন না দেয়া; স্বায়িত্বশাসিত প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা/কর্মচারীদের চাকুরি ছাড়ার পর নির্বাচনে অংশ নেওয়া।

এদিকে একই দিন সকালে ইসির সঙ্গে নির্বাচনী সংলাপে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পূর্বেই বিদ্যমান জাতীয় সংসদ ভেঙে দিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের মধ্যে সমতা বিধান, নিরপেক্ষ নির্বাচন নিশ্চিতকরণ, প্রয়োজনে যে কোনও রাষ্ট্রীয় বাহিনি নিয়োগে কমিশনের পূর্ণ স্বাধীনতাসহ ১৭ দফা প্রস্তাব পেশ করে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)।

এর আগে গত ৩১ জুলাই সুশীল সমাজ, ১৬ ও ১৭ অগাস্ট গণমাধ্যম প্রতিনিধির সঙ্গে সংলাপের পর ২৪ অগাস্ট থেকে রাজনৈতিক দলের সঙ্গে ইসির মত বিনিময় শুরু হয়। এ পর্যন্ত ৩১টি রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংলাপ করেছে ইসি।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ২৮ জানুয়ারির পূর্ববর্তী ৯০ দিনের মধ্যে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন করার সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে। গত ১৬ জুলাই একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে  রোডম্যাপ ঘোষণা করে ইসি। রোডম্যাপ অনুযায়ী চলছে সংলাপ।

ব্রেকিংনিউজ/এমআই/এমআর