শিরোনাম:

অর্থনীতিতে বড় অবদান রাখছেন প্রবাসী নারী কর্মীরা

রাশেদ শাওন
প্রকাশিত : শনিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০১৭, ০৫:৩১
অ-অ+
অর্থনীতিতে বড় অবদান রাখছেন প্রবাসী নারী কর্মীরা

হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ১০ বছর আগে আমার স্বামী যখন মারা যায়, আমি একেবারেই হতাশ হয়ে পড়ি। তিন সন্তানের খাবার জোগাড় করার মতো কোনো টাকা ছিল না। এটা আমার জন্য ছিল খুবই দুঃসহ একটা সময়। নিজের অতীত স্মৃতি এভাবেই বর্ণনা করছিলেন গাজিপুরের টঙ্গী এলাকার বাসিন্দা রোকেয়া বেগম।

বর্তমানে দুবাইতে থাকেন রোকেয়া। ৩৫ বছর বয়সী এই নারী জানান, টাকা ধার করে, প্রতিবেশীদের বাড়িতে কাজ করে সংসার চালাতে হয়েছে তাকে। তার ভাষায়, ‘অনেকদিন এমন হয়েছে যে মাত্র একবেলা খেয়ে সারাদিন কাটাতে হয়েছে।’

তার এই দুঃখের সময় সহযোগিতার জন্য এগিয়ে আসেন ওবায়দুল মোল্লা নামের এক প্রতিবেশী। তিনিই রোকেয়াকে বিদেশে চাকরির প্রস্তাব দেন। রোকেয়া বলেন, ‘বেঁচে থাকার আর কোনো পথ না পেয়ে আমি প্রস্তাবটি গ্রহণ করি। সন্তানদের শাশুড়ির কাছে রেখে চলে যাই দুবাই।’

প্রবাসের চাকরিটিই বদলে দেয় রোকেয়ার ভাগ্য। বিদেশ থেকে পরিবারের জন্য টাকা পাঠাতে শুরু করে সে। তিনি বলেন, ‘প্রতিমাসে ২০ হাজার করে টাকা পাঠাই। নয় বছর ধরে দুবাইতে গৃহকর্মীর কাজ করছি।’

একজন রোকেয়াই শুধু নয়, তার মতো অসংখ্য নারী কর্মী দেশের বাইরে কাজ করছেন। তারা শুধু নিজের পরিবারের স্বচ্ছলতা অর্জনেই ভূমিকা রাখছেন না; দেশের অর্থনীতিতেও রাখছেন বিরাট অবদান। ইতিমধ্যে জাতিসংঘ ঘোষিত টেকসই উন্নয়ন লক্ষমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে প্রবাসী নারী কর্মীদের অবদান আরো বাড়াতে নানা পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার।

প্রবাসী কল্যাণ এবং বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের তথ্যমতে, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বর্তমানে ছয় লাখ ৭৪ হাজার ২১১ জন প্রবাসী নারী কর্মী কাজ করছেন। বিদেশে বাংলাদেশের নারী কর্মীদের কাজের দক্ষতার কারণে অনেক দেশই অধিক সংখ্যক নারী কর্মী নিয়োগের ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করছে।

চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে অক্টোবর পর্যন্ত সৌদি আরবসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এক লাখ ১৩৬ জন নারী কর্মী গমন করেন। এরমধ্যে সবচেয়ে বেশিসংখ্যক, ৬৬ হাজার ৭৭৩ জন নারী কর্মী গেছেন সৌদি আরবে। এছাড়া জর্ডানে ১৭ হাজার ৪৮০ জন, ওমানে সাত হাজার ৮৭৯ জন নারী কর্মী গেছেন।

মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশসহ জাপান, রাশিয়া, মরিশাস, অস্ট্রেলিয়া, মালদ্বীপ, হংকংসহ কয়েকটি দেশে আরো নারী কর্মী পাঠানোর উদ্যোগ নিয়েছে সরকার।

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক রেখা সাহা জানান, ২০১৬ সালে অভিবাসী শ্রমিকরা ১৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলারেরও বেশি আয় করেছে।

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব নমিতা হালদার জানান, বিশ্বের বিভিন্ন দেশ বাংলাদেশের নারী কর্মী নেয়ার ব্যাপারে ব্যাপক আগ্রহ প্রকাশ করেছে। ইতোমধ্যে জাপানের সাথে এ ব্যাপারে আলোচনার জন্য প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের একটি প্রতিনিধি দল জাপান সফর করেছেন। নারী কর্মী প্রেরণসংক্রান্ত বিষয়ে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি দল রাশিয়াসহ অন্যান্য দেশও সফর করছেন।

নমিতা বলেন, পোশাক কারখানায় দক্ষ নারী কর্মী এবং মধ্যপ্রাচ্যসহ বিভিন্ন দেশে গৃহকর্মী প্রেরণের আগে তাদের ৩৪টি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের মাধ্যমে বিশেষ ভাষা জ্ঞানসহ বিভিন্ন বিষয়ে বিভিন্ন মেয়াদে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়।

ব্রেকিংনিউজ/ আরএস