শিরোনাম:

মালয়েশিয়ায় ১৭২ বাংলাদেশী গ্রেফতার

রাশেদ শাওন
প্রকাশিত : শুক্রবার, ১২ জানুয়ারী ২০১৮, ০৩:৪৬
অ-অ+
মালয়েশিয়ায় ১৭২ বাংলাদেশী গ্রেফতার

মালয়েশিয়ার ‘সেকিয়েন ২৮, শাহ আলম’ এলাকায় শুক্রবার ভোরে এক অভিযান চালিয়ে একটি বাংলাদেশী পাচারকারী চক্রকে পাকড়াও করেছে দেশটির অভিবাসন বিভাগ। মালয়েশীয় গণমাধ্যম দ্য স্টার ও দ্য সান ডেইলি এই তথ্য জানিয়েছে।

গণমাধ্যম দুটির প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশী একটি পাচারকারী চক্রের নেটওয়ার্ক ছিন্নভিন্ন করে দিয়েছে প্রশাসন। বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার পৃথক অভিযানে মোট ১৭২ বাংলাদেশীকে গ্রেফতার করেছে দেশটির অভিবাসন বিভাগ।

মালয়েশীয় অভিবাসন বিভাগের মহাপরিচালক দাতুক সেরি মুস্তফার জানিয়েছেন, পাচারকারী চক্রের মূলহোতা আবদুর রউফকেও গ্রেফতার করেছে তারা (৪৩)। মালয়েশিয়ায় তিনি ‘এবং বাংলা’ নামে পরিচিত। রউফই অসংখ্য বাংলাদেশীকে অবৈধভাবে দেশটিতে নিয়ে যাচ্ছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এক সংবাদ সম্মেলনে মুস্তফার বলেন, ‘আমরা ৪৯ বছর বয়সী এক স্থানীয় ব্যক্তিকেও গ্রেফতার করেছি। তিনি এবং বাংলার সহযোগী বলে ধারণা করা হচ্ছে। পরে আমরা ২০ থেকে ৪৫ বছর বয়সী আরো ৫০ বাংলাদেশীকে গ্রেফতার করেছি। তাদের কাছ থেকে ১৩ হাজার রিঙ্গিত ও ৪৮টি পাসপোর্ট উদ্ধার করা হয়েছে।’

প্রাথমিক তদন্তে দেখা যায়, ‘এবং বাংলা’ আট মাস ধরে অবৈধভাবে মানবপাচার করে আসছিলেন। পাচারকৃতদের অনেককে গ্রেফতার করে বিভিন্ন সময়ে সাজাও দেয়া হয়েছে।

মালয়েশিয়ায় এই পাচারকারী বাংলাদেশীদের প্রথমে বিমানে করে ঢাকা থেকে ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তায় নিয়ে যেতেন। এরপর সেখান থেকে তাদের মালাক্কা প্রণালীর এক জায়গায় রেখে দেয়া হতো। এজন্য প্রত্যেক বাংলাদেশীর কাছ থেকে ১৫ থেকে ২০ হাজার রিঙ্গিত (তিন লাখ ১৪ হাজার থেকে চার লাখ ১৮ হাজার টাকা) নেয়া হতো বলে জানান মুস্তফার।

তিনি বলেন, জোর করে বাংলাদেশীদের কাছ থেকে টাকা নিতেন রউফ। কেউ টাকা না দিলে তাকে মাঝপথেই রেখে দেয়া হতো। টাকা দিলে মালয়েশীয় নিয়োগকারীদের হাতে তুলে দেয়া হতো তাদের।

২০১৩ সালে ইটভাটায় কাজ করতে মালয়েশিয়ায় যান রউফ। তাকে মানব পাচারবিরোধী আইনে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি ৫০ বাংলাদেশীকে অভিবাসন আইনে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।

এছাড়া গত রাতে মালয়েশিয়ার সুবং জয়াতে আলাদা এক অভিযানে ১২১ বাংলাদেশী, ৬০ ভারতীয় ও দুই পাকিস্তানিকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানান মুস্তফার। তিনি বলেন, ‘তারা মেয়াদোত্তীর্ণ পাসপোর্ট ও অবৈধ সেক্টরে কাজ করাসহ বিভিন্ন অপরাধে সম্পৃক্ত।’

ব্রেকিংনিউজ/ আরএস