শিরোনাম:

ব্লাইন্ড ক্রিকেটে স্বস্তি বসুন্ধরায়

সিনিয়র স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট
প্রকাশিত : শুক্রবার, ১২ জানুয়ারী ২০১৮, ০৭:১১
অ-অ+
ব্লাইন্ড ক্রিকেটে স্বস্তি বসুন্ধরায়

ঢাকা : সুদিনের হাওয়া বইতে শুরু করেছে বাংলাদেশ ব্লাইন্ড ক্রিকেটে। ক্রিকেট পাগল দেশে তাদের পথ চলার ১৭ বছরে অভাব যেন কোনোভাবেই পিছু ছাড়ছিল না।

তবে ২০১৮ ওয়ানডে বিশ্বকাপে অনেকটাই বদলে গেছে ব্লাইন্ড ক্রিকেটারদের বাহ্যিক চেহারা। যার বড় ভূমিকায় বাংলাদেশের অন্যতম সেরা ব্যাবসায়ী প্রতিষ্ঠান বসুন্ধরা গ্রুপ। 

এর আগে ব্লাইন্ড ক্রিকেটের বড় কোনো আসরে অংশ নেয়ার পূর্বে অভাবের কমতি ছিল না বাংলাদেশ দলের। এক সেট জার্সির বেশী কিছু দেয়ার সামর্থ্য ছিল না বাংলাদেশ ব্লাইন্ড ক্রিকেট কাউন্সিলের কর্মকর্তাদের পক্ষ থেকে। 

তবে এবারের চিত্রটা একেবারেই ভিন্ন। চার সেট করে জার্সি পেয়েছে দলের ১৭ জন ক্রিকেটার। ঠান্ডার সময়ে খেলা হচ্ছে বলে ট্র্যাকশ্যূটও দেয়া হয়েছে তাদেরকে। সঙ্গে দেয়া হয়েছে ক্রিকেট খেলার জুতাও। কারণ এবার বিশ্বকাপে খেলতে যাওয়া ব্লাইন্ড ক্রিকেট দলের প্রধান পৃষ্ঠপোষকের দায়িত্বটা পালন করছে বসুন্ধরা গ্রুপ। তাতেই যেন স্বস্তি ফিরেছে ব্লাইন্ড ক্রিকেটারদের। 

দলের কোচ সানোয়ার আহমেদ বলেন,‘অন্যান্য সময়ের তুলনায় এবারের টুর্নামেন্টে ছেলেরা বেশ ফুরফুরে মেজাজে আছে। বসুন্ধরা গ্রুপ যদি এভাবে সহযোগিতা করতে থাকে তাহলে খুব দ্রুতই ব্লাইন্ড ক্রিকেটে প্রতিপক্ষের জন্য আতঙ্কের এক নাম হবে বাংলাদেশ।’

প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ কামরুল ইসলাম ও দলের ম্যানেজার মোহাম্মদ তাইজুদ্দিনের হাত ধরে শুরু হয় ব্লাইন্ড ক্রিকেটে বাংলাদেশের পথচলা। তারাও বলছেন এবারের টুর্নামেন্ট যেন একটু ভিন্ন অনুভূতিই দিচ্ছে। 

ঢাকা থেকে পাকিস্তানের করাচি এরপর লাহোরে পৌঁছে বাংলাদেশ ব্লাইন্ড ক্রিকেট দল। বিমানবন্দর থেকে হোটেলে পৌঁছানোর জন্য বুলেট প্রুফ বাস। সামনে পিছনে পাকিস্তানের নিরাপত্তা বাহিনীর গাড়িবহর। 

হোটেলে পৌঁছে লাল গালিচা, ফুলেল অভ্যর্থনা। যেন এক মর্যাদাপূর্ন জাতীয় দল। দীর্ঘদিন ধরে দলের অন্যতম গুরুত্বপূর্ন ক্রিকেটার মাহমুদ রশিদ বলেন.‘ পরিপূর্ন সম্মান নিয়েই এবারের টুর্নামেন্ট খেলতে  পেরে আমরা সত্যিই খুব আনন্দিত।’

টুর্নামেন্ট শুরুর আগে বিকেএসপিতে ২০ দিনের ট্রেনিং করেছে কোচ সানোয়ার আহমেদের দল। পরিপূর্ন ট্রেনিংন না পেলেও পূর্বের চেয়ে এবার অনুশীলন ক্যাম্প নিয়ে সন্তুষ্ট বাংলাদেশ ব্লাইন্ড ক্রিকেট দল। আর প্রথমবারের মত অনুশীলন শেষে আর্থিকভাবে ক্রিকেটারদের অনুপ্রেরণা যুগিয়েছেন বিবিসিসির পরিচালক মঈন ইকবাল। 



বসুন্ধরা গ্রুপের সাথে যোগাযোগের প্রধান মাধ্যমও তিনি। এ প্রসঙ্গে মঈন ইকবাল বলেন,‘ ব্লাইন্ড ক্রিকেটের উন্নয়নের জন্য দ্রুতই সহযোগিতা বাড়াতে রাজী হয়েছে বসুন্ধরা গ্রুপ। 

আর তাই বিবিসিসির পক্ষ্য থেকে ভাইস চেয়ারম্যানসাফওয়ান সোবহান (তাসভীর)-কে বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানিয়েছেন, পরিচালক মইন ইকবাল। আর সাফওয়ান সোবহান (তাসভীর)-কে বিবিসিসির নেতৃত্বেও চাইছেন দলের খেলোয়াড় ও কর্মকর্তারা।

ব্রেকিংনিউজ/এসএম