শিরোনাম:

তবুও পৌঁছাতে হবে প্রিয়জনদের কাছে

তৌহিদুজ্জামান তন্ময়
১৪ জুন ২০১৮, বৃহস্পতিবার
প্রকাশিত: 12:19 আপডেট: 2:33
তবুও পৌঁছাতে হবে প্রিয়জনদের কাছে

প্রিয়জনের সাথে একটু বেশি সময় ঈদের আনন্দ কাটানো যায় সে জন্য নগরবাসী কত কষ্টই না করে। পরিবার-পরিজন ও প্রিয়জনদের সাথে ঈদের আনন্দকে ভাগাভাগি করতে প্রতিবছরই ঈদে বাড়ি ফেরেন রাজধানী ও এর আশেপাশে থাকা অসংখ্য মানুষ। উদ্দেশ্য একটাই পৌঁছাতে হবে প্রিয়জনদের কাছে।

বৃহস্পতিবার (১৪ জুন) সকাল থেকেই রাজধানীর কল্যাণপুর, গাবতলি, মহাখালী ও সায়দাবাদ বাস টার্মিনালে ঘরমুখো মানুষের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে।

সকাল ১০টার কিছু সময় পরে দেখা যায় অপেক্ষাকৃত কিছু যাত্রী বাসের জন্য টিকিট কাটতে কাউন্টারে গেলে বাড়তি ভাড়া চাওয়ায় তারা টিকিট না কেটে জীবনের ঝুঁকি নিয়েই ট্রাকে উঠছেন কম ভাড়ার আসায়।



ট্রাকে উঠার সময় আকাশ আহমেদ নামের একযাত্রী ব্রেকিংনিউজকে বলেন, ‘যে বেতন পাই সেই বেতন দিয়ে বাসে যাওয়া আসা খুব কষ্টকর, তাই ট্রাকে কম খরচে বাড়ি যাচ্ছি।’

আজ বেশিরভাগ শিল্প-কারখানায় ছুটি শুরু হওয়ায় ফলে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ঘরমুখো মানুষের ভীড় এখন স্রোতে পরিণত হয়েছে। যে যেভাবে পারছে সেভাবে বিভিন্ন যানবাহনে উঠে পড়ছে। নানা কষ্ট সহ্য করেই আশপাশের বিভিন্ন এলাকা থেকে জড়ো হচ্ছে এসব স্থানে।’



ঘরমুখো মানুষের এ স্রোত সামলাতে রীতিমত বেগ পেতে হচ্ছে পরিবহন শ্রমিক, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের। তবে সবকিছু মিলিয়ে সড়কে যানজট না থাকলে এবারের ঈদযাত্রা স্বস্তিদায়ক হবে বলে জানালেন এবার ঈদে ঘরে রংপুরের মিঠাপুর এলাকার আজিমুর আজিজ। 

তবে অনেক যাত্রী ব্রেকিংনিউজের প্রতিবেদকের কাছে অভিযোগ করেছেন ঈদকে সামনে রেখে পরিবহন শ্রমিকরা বাড়তি ভাড়া আদায় করছে। আর বাড়তি ভাড়া নেয়ার বিষয়ে তেমন কোনো ফলপ্রসু উত্তর দিতে পারেনি পরিবহন সংশ্লিষ্ট কেউই।  সব মিলিয়ে সকল ঝামেলা মিটিয়ে প্রিয়জনদের সাথে ঈদের আনন্দ সবাই ভাগাভাগি করতে পারবে এটাই সবার প্রত্যাশা।

ব্রেকিংনিউজ/ টিটি/ এসএ 

Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Bottom-1
Ads-Bottom-2