শিরোনাম:

এই বাজারে সবাই ‘টাকা’ কিনতে আসেন!

রকমারি ডেস্ক
৭ আগস্ট ২০১৮, মঙ্গলবার
প্রকাশিত: 7:51
এই বাজারে সবাই ‘টাকা’ কিনতে আসেন!

বাজার বলতে আমরা সাধারণত শাক-সবজি, মাছ-মাংস কিংবা নিত্যপ্রয়োজনী বিক্রির স্থানকেই বুঝি। না, বাজারে পছন্দের পোশাক, সৌখিন দ্রব্য এমনকি প্রায় সবকিছুই পাওয়া যায়। কিন্তু টাকাও! যেকেউ শুনে তাজ্জব বনে যেতে পারেন। বাজারে টাকাও বিক্রি হয়! হ্যাঁ, এই গ্রহেই তেমন বাজারের সন্ধান পাওয়া গেছে। যে বাজারে শুধু টাকা বিক্রি হয়। ক্রেতারাও আসেন শুধু টাকা কিনতে। 

আফ্রিকার সোমালিয়ার সোমালিল্যান্ডে দেখা মিলেছে অদ্ভুত এই বাজারের। যেখানে রাস্তার দুপাশে সারি সারি করে টাকা বস্তা সাজিয়ে বসে আছেন বিক্রেতারা। সেখানকার মানুষও দিন-দুপুরেই বিনিময় করে নিয়ে যাচ্ছেন বান্ডেল বান্ডেল টাকার নোট।

নকল কিংবা জাল টাকা তো নয়! এমন কৌতুহলী পাঠককে এটুকু নিশ্চিত করা যায়- না, এগুলো সবই আসল টাকা। আর সেই বাজারে অতিরিক্ত নিরাপত্তারও প্রয়োজন নেই। নেই বাড়তি পুলিশ বা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীও। 

কারণ এমন অদ্ভুত বাজার গড়ে ওঠার পেছনে সোমালিল্যান্ডের আর্থিক কাঠামো সহায়ক বলে জানা যায়। সেই টাকাকে বলা হয় ‘শিলিং’। 

কিন্তু বাজারে টাকা বিক্রি হচ্ছে কেন? উত্তরটিও জানা গেছে। শিলিংয়ের দাম ব্যাপকভাবে কমে যাওয়ায় এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। যেখানে ১ মার্কিন ডলারের দাম ১০ হাজার শিলিংয়ের কাছাকাছি। তাই মোট ১০ ডলার খরচ করলে পাওয়া যাবে কমপক্ষে ৫০ কেজি ওজনের একটি নোটের বস্তা! যা নিজের পকেটে নেওয়া যায় না। বাধ্য হয়ে সেই টাকা নিতে কয়েকটি বস্তা বা একটি ঠেলাগাড়ির প্রয়োজন হয়। 

জানা গেছে, শিলিংয়ের মূল্যহ্রাসের কারণে চোর-ডাকাতরাও সেই টাকা চুরি করতে আগ্রহী নয়। তাইতো খোলা বাজারে অবাধে টাকার বস্তা ফেলে রেখেছেন বিক্রেতারা। ক্রেতারাও নির্ভয়ে বস্তা বস্তা টাকা কিনে ঘরে ফিরছেন।  

ব্রেকিংনিউজ/এমআর

Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Bottom-1
Ads-Bottom-2