সংবাদ শিরোনামঃ

সৈয়দপুর হবে সিঙ্গাপুর : আদেল

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
১২ জানুয়ারি ২০১৯, শনিবার
প্রকাশিত: ০৪:৪৫ আপডেট: ০৪:৫৯

সৈয়দপুর হবে সিঙ্গাপুর : আদেল

ডিজিটাল বৈষম্য শূন্যের কোঠায় নামিয়ে এনে নীলফারী জেলার কিশোরগঞ্জ ও সৈয়দপুরকে সিঙ্গাপুর বানিয়ে ফেলার স্বপ্ন দেখালেন নীলফামারী-৪ আসনের সংসদ সদস্য আহসান আদেলুর রহমান-আদেল। দল-মত নির্বিশেষে সকলের মতামতকে প্রাধান্য দিয়ে বৈষম্যহীন ভাবে কিশোরগঞ্জ ও সৈয়দপুরের অবকাঠামো উন্নয়ন ও দক্ষ মানবসম্পদ গড়ে তুলতে বিরামহীন ভাবে কাজ করবো বলে জানালেন তিনি।   

শুক্রবার রাতে রাজধানী ঢাকার রমনা রেস্তেরায় সৈয়দপুর ও কিশোরগঞ্জ সচেতন নাগরিক ফোরাম আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তবে এই স্বপ্নের কথা ব্যক্ত করেন তিনি।

আদেলুর রহমান বলেন, কিশোরগঞ্জ-সৈয়দপুরকে সিঙ্গাপুরের মতো করে গড়তে চাই। এজন্য প্রথমেই ইউনিয়ন পর্যায়ের রাস্তাগুলো ১০-২০ ফিট করা হবে। সুপরিকল্পিত ভাবে আঁকাবাকা রাস্তাগুলো সরু করা হবে। ২০ বছরের পরের অবস্থা বিবেচনায় নিয়েই এই উন্নয়ন পরিকল্পনা করা হবে। এতে করে দূরত্ব কমবে এবং সময়ও বাঁচবে। 

তিনি বলেন, এলাকার প্রতিটি ধর্ম-বর্ণ-গোত্রের মানুষের পরামর্শে এলাকার মৌলিক প্রয়োজন আমি অগ্রাধিকার ভিত্তিতে মেটাতে চাই। জীবন মানের উন্নয়নে শিক্ষা, যোগাযোগ, স্বাস্থ্য এর পাশাপাশি মানবিক দিকগুলোও আমার উন্নয়নে কর্মপরিকল্পনায় থাকবে সবার ওপরে। কৃষিতে প্রযুক্তির প্রয়োগ এবং যুবকদের প্রশিক্ষিত করে নীলফামারিকে গ্রামীণ শিল্পায়নের আদর্শ হিসেবে গড়ে তুলবো। যেখানে গ্রামের আবহে শহরের সকল সুবিধাই বিদ্যমান থাকবে।   

সৈয়দপুর ও কিশোরগঞ্জ সচেতন নাগরিক ফোরাম সভাপতি হাসান মেজরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তারা  জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসাইন মুহাম্মদ এরশাদের ভাগ্নে ও জাতীয় পার্টি থেকে নির্বাচিত সর্ব কনিষ্ঠ সংসদ সদস্যের সামনে এলাকার নানা সমস্যা তুলে ধরেন। 

আলোচনয় দীর্ঘ ১৮ বছর ধরে কিশোরগঞ্জের থানা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর এক্সরে মেশিন নষ্ট থাকা, শিক্ষকদের বেতনের ক্ষেত্রে স্কুল কমিটির সভাপতিকে উৎকোচ প্রদান, অনুন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা ও কোল্ড স্টোরেজ না থাকা ইত্যাদি বিষয় উঠে আসে। আগামী কয়েক মাসের মধ্যে এসব সমস্যা সমাধানে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের প্রতিশ্রুতি দেন সাংসদ আহসান আদেলুর রহমান।

ব্রেকিংনিউজ/এমজি