রংপুরে মরিচের দাম আকাশছোঁয়া: তবুও চাষির মন খারাপ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, রংপুর
২৯ জুলাই ২০১৯, সোমবার
প্রকাশিত: ০৪:৪৬

রংপুরে মরিচের দাম আকাশছোঁয়া: তবুও চাষির মন খারাপ

রংপুরের হাট-বাজারে মরিচের দাম আকাশছোঁয়া হলেও চাষিদের মন খারাপ। কারণ সম্প্রতি বন্যায় ও বৃষ্টির পানিতে জলবদ্ধতায় অধিকাংশ মরিচ গাছই মরে গেছে। 

চাষিরা জানান, রংপুরে অনেক চাষি মরিচের চাষ করেছেন। কিন্তু প্রথমে একটানা গরম, এরপর বন্যা আর দুই সপ্তাহ ধরে বৃষ্টিতে তলিয়ে যায় মরিচের ক্ষেত। আর তাতেই ক্ষতি হয়েছে গাছের। ক্ষেতে মরিচের সব গাছ মরে যাচ্ছে। এতে মরিচ উৎপাদন কমে গেছে। ফলে ভালো দাম পেলেও চাষিদের মন খারাপ।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কাঁচা মরিচের বাজার দর সকালে এক দাম তো বিকেলে আরেক দাম। গত ১২ ধরে ১৮০ থেকে ২০০ টাকা কেজি দরে কাঁচা মরিচ বিক্রি হচ্ছে। অথচ ১৩ দিন আগেও প্রতি কেজি মরিচ ৪০ থেকে ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে। রংপুর নগরীর সিটি বাজার, মাহীগঞ্জ বাজার, মর্ডাণ ও কাউনিয়া উপজেলার তকিপল হাট, টেপামধুপুরসহ আরও কয়েকটি হাটবাজারে কৃষকেরা কাঁচা মরিচ বিক্রি করেছেন ১৮০ থেকে ২০০ টাকা কেজি দরে। তিন সপ্তাহের ব্যবধানে ২০ থেকে ২৫ গুণ বেশি দামে মরিচ বিক্রি করেও চাষিদের মুখে হাসি নেই। কারণ এই দুই সপ্তাহের মধ্যে তাদের মরিচ ক্ষেতগুলো হয়ে পড়েছে অনেকটাই মরিচ শূন্য। মরিচের গাছগুলো মরে যাওয়ার কারণে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। 

কাউনিয়া উপজেলা উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোস্তফা কামাল বলেন, ‘নাজিরদহ ব্লকে প্রায় ৪২ বিঘা জমিতে মরিচ চাষ হয়েছে। সৃষ্ট বন্যা ও ও বৃষ্টির পানিতে জলাবদ্ধতার কারণে ক্ষেতের প্রায় সব মরিচের গাছ মরে গেছে। বর্তমান হাট-বাজারে বেশি দরে মরিচ বিক্রি হলেও এ ব্লকে মরিচের গাছ বিনষ্ট হওয়ায় চাষিদের লোকসান হয়েছে।’

এব্যাপারে নাজিরদহ গ্রামের চাষি মাহফুজার রহমান বসুনিয়া জানান, প্রায় ৫৩ হাজার টাকা খরচ করে ২ বিঘা জমিতে মরিচ চাষ করেছেন। বন্যার পানিতে তার মরিচের খেত তলিয়ে যায়। পানি নেমে যাওয়ার পরেই খেতের মরিচের গাছগুলো নিস্তেজ হয়ে মরে যেতে শুরু করেছে। গাছগুলোতে মরিচ নেই বললেই চলে। এবার মরিচ চাষে প্রায় ৩২ হাজার টাকা লোকসান হবে তার।

একই গ্রামের চাষি আ. রহিম জানান, বন্যার পানিতে তার ২৭ শতাংশ জমির সব মরিচের গাছ মরে গিয়েছে। বাজারে মরিচের দাম বাড়লেও তিনি তা থেকে বঞ্চিত হয়েছেন বলে জানান। 

সরেজমিনে রংপুর গঙ্গাচড়া ও কাউনিয়া উপজেলার হারাগাছ নাজিরদহ গ্রামসহ বিভিন্ন গ্রামে দেখা গেছে, বেশির ভাগ খেতে মরিচ গাছ মরে গিয়ে গাছগুলো শুকিয়ে দাড়িয়ে আছে। গাছগুলোতে মরিচ নেই বললেই চলে। আবার কেউ কেউ মরে যাওয়া গাছ থেকে অপরিপক্ক কাঁচা মরিচ তুলছে। 

রংপুরের কাউনিয়া উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার আতিক আহমেদ জানান, জলাবদ্ধতা হলেই মরিচের গাছ মরে যায়। সম্প্রতি তিস্তা নদীর পানি বেড়ে গিয়ে এ অঞ্চলে বন্যা দেখা দেয়। সেই সঙ্গে মুষলধারে বৃষ্টি। বন্যায় ও জলাবদ্ধতার কারণে বেশ কিছু এলাকায় মরিচের খেত নষ্ট হয়ে গেছে। এ কারণে মরিচের উৎপাদন কিছুটা কমে গেছে। এ কারণে সম্প্রতি বাজারে মরিচের দাম বাড়লেও চাষিদের মন খারাপ। 

ব্রেকিংনিউজ/জেআই

bnbd-ads
breakingnews.com.bd
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা, ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫, ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা,
  ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫,
 ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
© ২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি