চালের মূল্য বৃদ্ধি, কারসাজি হয় কুষ্টিয়া মোকাম থেকে

জেলা প্রতিনিধি
২৪ নভেম্বর ২০১৯, রবিবার
প্রকাশিত: ০৬:০৫ আপডেট: ০৬:০৬

চালের মূল্য বৃদ্ধি, কারসাজি হয় কুষ্টিয়া মোকাম থেকে

দেশের অন্যতম চালের মোকাম কুষ্টিয়াতে। তাই সারাদেশের চালের বাজার নিয়ন্ত্রণ করে কুষ্টিয়ার ৪৬টি অটো চালকলের মালিক। এ সুযোগে মালিক সিন্ডিকেটটি দাম বাড়িয়ে প্রতিবছরই বাজার থেকে নিয়ে যাচ্ছেন কোটি কোটি টাকা। দুর্বল মনিটরিং ও নানা অবৈধ পন্থায় তারা প্রায়ই চালের বাজার অস্থির করে তোলেন। বেকায়দায় পড়ে প্রান্তিক জনসাধারণ। 

কুষ্টিয়ায় অটো চালকল রয়েছে ৪৬টি। সদর উপজেলায় ৪৩টি, দৌলতপুরে ২টি ও কুমারখালীতে ১টি। এর মধ্যে সদর উপজেলায় দেশে বড় মোকাগুলোর অবস্থান হওয়ায় তারাই পুরো দেশের চালের বাজার নিয়ন্ত্রণ করে। বিভিন্ন অজুহাতে চালের দাম বাড়িয়ে জনসাধারণের পকেট কাটে। পাশাপাশি অস্থিতিশীল করে চালের বাজার।

গত কয়েকদিনে কুষ্টিয়ার মোকামে সব ধরনের চালে কেজিতে ১ টাকা করে বেড়েছে। আড়তে চাল সংকটের অজুহাতে দাম বাড়িয়েছেন অধিকাংশ মিল মালিক। অথচ মোকামে ১০ হাজার টন চাল মজুদ রয়েছে বলে জানা যায় প্রশাসনের মাধ্যমে। তারপরও দাম বাড়ানো পুরোপুরি অযৌক্তিক বলে দাবি খুচরা ব্যবসায়ী ও ভোক্তাদের।

এদিকে মোকামে সব ধরনের চালে কেজিতে ১ টাকা করে বেড়েছে। ফলে পরিবহনসহ অন্যান্য খরচ শেষে খুচরা পর্যায়ে ভোক্তাকে কেজিপ্রতি ৩ থেকে ৪ টাকা বেশি দিয়ে কিনতে হবে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ধানের দাম বৃদ্ধি ও চাল সংকটের অজুহাতে সব ধরনের চালে কেজিতে ১ টাকা করে বাড়িয়েছেন মালিকরা। অথচ কৃষকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে ধানের দাম গত এক সপ্তাহে নতুন করে বাড়েনি। বিপরীতে নতুন ধান ওঠায় কিছু জাতের ধানের দাম কমেছে। এছাড়া পরিবহন ধর্মঘটের কারণে গত এক সপ্তাহ মোকাম থেকে চাল সরবরাহ ছিল সর্বনিম্ন পর্যায়ে। ফলে মিলগুলোতে ১০ হাজার টনেরও অধিক চাল জমে যায়। যেগুলো শুক্রবার থেকে দেশব্যাপী সরবরাহ শুরু হয়েছে।

কুষ্টিয়া পৌর বাজারের বড় পাইকার শাপলা ট্রেডার্সের স্বত্ত্বাধিকারী আশরাফুল ইসলাম জানান, চালের বাজার গত কয়েকদিন ধরে স্থিতিশীল ছিল। শনিবার (২৩ নভেম্বর) মিলগেটে ১ করে দাম বাড়ানো হয়েছে। তাই মিলের লোক এসে নতুন দাম নির্ধারণ করে দিয়ে গেছে।

কয়েকটি হাসকিং মিল মালিক অভিযোগ করেন, চালের বাজারের নিয়ন্ত্রণ বড় অটো মিল মালিকদের হাতে। তারা দাম বাড়ালে বাজারেও দাম বেড়ে যায়। নতুন ধান ওঠার সময় চালের দাম বাড়ার নজির নেই। বড় মিলের মালিকরা প্রচুর ধান ও চাল মজুদ করে। ফলে প্রয়োজনের সময় তারা সংকট সৃষ্টি করে খুব সহজেই চালের দাম বাড়িয়ে দেয়। সারাদেশে অটো মিল মালিকদের সিন্ডিকেট রয়েছে। তারা একযোগে সারাদেশে দাম বাড়ান। এবার ধানের দাম সামান্য বেড়েছে। কিন্তু তাতে চালের দাম কেজিপ্রতি ৩ থেকে ৪ টাকা বাড়ার কথা নয়। জেলা প্রশাসনের অনুরোধে অনেকেই দাম বাড়াননি। তবে কেউ কেউ বাড়িয়েছেন।

চালকল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদিন প্রধান জানান, পরিবহন এক সপ্তাহের মতো বন্ধ থাকায় চাল সরবরাহ বন্ধ ছিল। শুক্রবার থেকে পুনরায় সারাদেশে সরবরাহ শুরু হয়েছে। মোকামে প্রচুর চাল রয়েছে। নতুন করে চালের দাম বাড়ানো হয়নি।

সদর উপজেলা কৃষি অফিস জানায়, নতুন ধানের চাল বাজারে আসতে শুরু করেছে। ধানের বাজার ৯শ’ থেকে ১ হাজারের মধ্যে থাকলেও চালের দাম বাড়ার কথা নয়। ধানের বাজার কিছুটা বাড়ায় কৃষকরা ভালো দাম পাবেন বলে আশা করা যায়। ফড়িয়াদের মজুদ করা ধানই বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে।

পুলিশ সুপার এসএম তানভীর আরাফাত জানান, পেঁয়াজের দাম বাড়ার পর পুলিশ মাঠে নেমেছিল। লবণ নিয়েও গুজব ছড়ানো হয়, সেটাও নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে। এবার চালের দাম বাড়ায় চালের বাজারে নজরদারি করা হচ্ছে। সিন্ডিকেট করে দাম বাড়ানো হলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা প্রশাসক মো. আসলাম হোসেন জানান, মিল মালিকদের চালের দাম না বাড়াতে অনুরোধ করা হয়েছে। বড় অটো মিল মালিকরা এ কাজ করছেন। মোকামে ধান ও চাল মজুদের বিষয়ে নরজরদারি করা হচ্ছে। 

ব্রেকিংনিউজ/এম

bnbd-ads
breakingnews.com.bd
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা, ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫, ইমেইল : editor. breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা,
  ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫,
 ইমেইল : editor. breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
© ২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি