বাড়তি বরাদ্দের ধান ক্রয় করতে কৃষকের দ্বারে ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক

বিধান চন্দ্র দাস, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি
৬ জুলাই ২০১৯, শনিবার
প্রকাশিত: ১০:৩৮

বাড়তি বরাদ্দের ধান ক্রয় করতে কৃষকের দ্বারে ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক

চলতি অর্থ বছরে ঠাকুরগাঁও জেলার কৃষকদের কাছ থেকে ধান সংগ্রহের লক্ষমাত্রা ছিলো মাত্র ১৮৫৭ মেট্রিক টন, যা চাহিদার তুলনায় নিতান্তই কম। কেননা এ জেলায় তিন লক্ষ চুরানব্বই হাজার কৃষকের মধ্যে দুই লক্ষই প্রান্তিক কৃষক।এহেন পরিস্থিতিতে জেলা প্রশাসক বরাদ্দের পরিমাণ বৃদ্ধির জন্য খাদ্য সচিবকে বিষয়টি অবহিত করলে পুনরায় ঠাকুরগাঁও জেলার জন্য ৩ হাজার মেট্রিক টন ধান ক্রয়ের অনুমতি পান।

আর এ নতুন বরাদ্দের অনুমতি পেইে সরাসরি কৃষকদের নিকট থেকে ধান সংগ্রহে নেমে পড়েন ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক ড. কেএম কামরুজ্জামান সেলিম।

শনিবার (৬ জুলাই) বিকেলে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার আকচা ইউনিয়নের দক্ষিণ বঠিনা এলাকার সর্দার পাড়া ও বামন পাড়া গ্রামে গিয়ে বাড়তি বরাদ্দের ধান ক্রয় কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন তিনি।

এসময় দুইটি এলাকার নির্বাচিত ১২ জন কৃষকের কাছ থেকে এক টন করে ধান সংগ্রহ করলেও সেসময় আইয়ুব আলী নামে এক কৃষক জেলা প্রশাসক মহোদয়ের নিকট তার ধান ক্রয়ের অনুরোধ জানালে জেলা প্রশাসক তাৎক্ষণিক সেই কৃষকেরও এক টন ধান ক্রয় করেন।

কৃষকের কাছ থেকে সরাসরি ধান ক্রয় কার্যক্রমে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) নূর কুতুবুল আলম, জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. বাবুল হোসেন, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ-আল-মামুন, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক বিপ্লব কুমার সিংহ রায়, খাদ্য পরিদর্শক নাঈম ইসলাম, শিবগঞ্জ এলএসডি গুদাম ইনচার্জ মো. গোলাম মোস্তফা, সদর এলএসডি গুদাম ইনচার্জ মো. শাহাবুদ্দিন, আকচা ইউপি চেয়ারম্যান সুব্রত কুমার বর্মনসহ জেলায় কর্মরত বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সংবাদকর্মীরা।

প্রসঙ্গত, গত ২২ মে কৃষকদের নিকট থেকে সরকার নির্ধারিত কেজি প্রতি ২৬ টাকা দরে ধান ও ২৮ টাকা দরে গম ক্রয় কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধ করেছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ঠাকুরগাঁও-১ আসনের সংসদ সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন। সেসময় জেলায় ১৮৫৭ মেট্রিক টন ধান ও ৬৬০৯ মেট্রিক টন গম ক্রয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারিত ছিলো।

ব্রেকিংনিউজ/জেআই