bnbd-ads
bnbd-ads

শেষ মুহূর্তে মেলায় বই কেনার ধুম

মাইদুল ইসলাম, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
২ মার্চ ২০১৯, শনিবার
প্রকাশিত: ০৫:৪৫ আপডেট: ০৮:৫৮

শেষ মুহূর্তে মেলায় বই কেনার ধুম
ছবি: সালেকুজ্জামান রাজীব

দেখতে দেখতে শেষ হচ্ছে বাঙালির প্রাণের মেলা। শেষ মুহূর্তে অমর একুশে গ্রন্থমেলায় দর্শনার্থীর চেয়ে ক্রেতাই বেশি। যারা মেলায় আসছেন সবাই নিজের পছন্দের বই কেনায় ব্যস্ত।

শনিবার (২ মার্চ) অমর একুশে গ্রন্থমেলা ঘুরে দেখা গেছে, মেলার শেষ দিনে বইপ্রেমীদের উপস্থিতি চোখে পড়ার মতো। এদিন দুপুর পর থেকে মেলা জমতে শুরু করে। শেষ মহুর্তে মেলায় আসা বইপ্রেমীরা কিনে নিচ্ছেন পছন্দের লেখকের বই। স্টলে স্টলে খোঁজ করছেন পছন্দের বই, পাওয়ার সাথে সাথে তা কিনে নিচ্ছেন।

এদিকে বইপ্রেমীদের এমন ভিড় সামলাতে ভীষণ ব্যস্ত দেখা যায় স্টলের বিক্রয়কর্মীদের। চাহিদা অনুযায়ী বই দিতে তারা হিমশিম খাচ্ছেন।

কথা প্রকাশের বিক্রয়কর্মী ইউনুস আলী ব্রেকিংনিউজ বলেন,  ‘প্রতিবছর শেষ দিনে বই বিক্রি বেশি হয়। অনেকেই শেষ দিনের জন্য অপেক্ষা করেন। আজ বইপ্রেমীদের ভিড় অনেক। বিক্রিও ভালো হচ্ছে।’

দুইদিন মেলার সময় বাড়ানোর ফলে প্রকাশকদের অনেক উপকার হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন,  ‘এই দুই দিন ছুটির দিন হওয়ায় বিক্রিও বেশ ভালো হয়েছে। আজ এ পর্যন্ত তিন থেকে চারশ বই বিক্রি হয়েছে, আরো কয়েকশো বই বিক্রি হবে। গতবারের চেয়ে এবার মেলায় মাস জুড়েই ভালো বিক্রি হয়েছে বলে জানান তিনি।’

মেলায় যারা আসছেন তাদের অধিকাংশই বই কিনে ফিরছেন। সবার হাতে ব্যাগভর্তি বই। পছন্দের বই কিনতে মেলায় এসেছেন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছাদেকুল ইসলাম। মাওলা ব্রাদার্স স্টলের সামনে কথা হয় তার সাথে। তিনি বলেন, ‘মেলার মাঝামাঝি সময়ে কিছু বই কেনা হয়েছিল। এরপর মেলায় আসি আসি করে আসা হয়নি। মেলার সময় বাড়ানোয় সুযোগটা হাতছাড়া করতে চাইনি।  তাই বন্ধুদের সাথে নিয়ে মেলায় এসেছি সবাই সবার পছন্দের বই কিনছে।’

উল্লেখ্য, বৈরি আবহাওয়ার কারণে লেখক-প্রকাশকদের দাবির মুখে এবার মেলা ২ দিন বাড়ানো হয়। 

এর আগে, গত ১ ফেব্রুয়ারি মেলার উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রতি বছরের ন্যায় এবারও আয়োজক প্রতিষ্ঠান বাংলা একাডেমি। মাসব্যাপী চলা এই মেলা ২৮ ফেব্রুয়ারি শেষ হওয়ার কথা ছিল। 

এবারের বইমেলায় ৫২৩টি প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে। এ ছাড়া ১৮০টি লিটলম্যাগকে স্টল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।  

ব্রেকিংনিউজ/এমআই/জেআই