এতিম না থাকলেও এতিম দেখিয়ে সরকারি টাকা আত্মসাৎ!

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
২৭ মে ২০১৯, সোমবার
প্রকাশিত: ০৯:৩১ আপডেট: ০৯:৩৩

এতিম না থাকলেও এতিম দেখিয়ে সরকারি টাকা আত্মসাৎ!
ফাইল ফটো

মূলত এতিম নেই, কিন্তু এতিম না থাকলেও দীর্ঘ ৮ বছর যাবত সরকারি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে বরিশাল বানারীপাড়ার মোহাম্মদিয়া হাফিজিয়া এতিমখানা মাদরাসা পরিচালনা কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সহ কর্তৃপক্ষ নামধারী কতিপয় সদস্যের বিরুদ্ধে। মা-বাবা থাকলেও অনেক মাদরাসা ছাত্রদের এতিম বলে চালিয়ে দিচ্ছেন তারা। আর এতিমদের নাম করে কাড়ি কাড়ি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন নিজেরাই। 

বানারীপাড়ার বাসার গ্রামে (বড়বাড়ী) মোহাম্মদিয়া হাফিজিয়া এতিমখানা ও মাদরাসায় ১৬ জন এতিমের জন্য মাসিক বরাদ্দ ১৬ হাজার টাকা। অথচ সরেজমিনে দেখা যায়, এতিমখানার সাইনবোর্ড টানানো থাকলেও ১৬ জন এতিম সেখানে নেই। ১৬ জন এতিমের তালিকা দেখাতে পারেননি অভিযুক্ত মাদরাসার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মাদ জাহাঙ্গীর।

নিয়ম অনুযায়ী, যাদের মা-বাবা বা শুধু বাবা নেই তারাই এ বরাদ্দ পাবে। কিন্তু মোহাম্মাদ জাহাঙ্গীর, মো. কালাম বাবুর্চিগং এই নিয়ম না মেনে সরকারি টাকা আত্মসাত করছেন দিনের পর দিন। 

অভিযোগ আছে, ১৬ জন এতিম আছে দেখিয়ে দীর্ঘ প্রায় ৮ বছর যাবত সরকারি ক্যাপিটেশন গ্রান্ডের টাকা আত্মসাত করে আসছেন তারা। সম্প্রতি ৬ মাসের বরাদ্দ পাস করিয়ে নেন জাহাঙ্গীর ও কালাম গং। এতিমখানাটির সমাজ সেবা অধিদফতরের ক্যাপিটেশন গ্রান্ড-রেজি নং বরি-৫২৯/৯৮।  

উল্লেখ্য, অডিটের সময় পূর্বেই ইনফরমেশন পেয়ে যায় মাদরাসা কর্তৃপক্ষ। তখন বিভিন্ন এলাকা থেকে ছাত্র এনে তাদের এতিম হিসেবে দেখানো হয়। এসব অনিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিয়ে বরং আত্মসাৎকারীদের পক্ষে তদবিরের অভিযোগ রয়েছে বানারীপাড়া উপজেলা সমাজসেবা অফিসার শাহজাদী আক্তারের বিরুদ্ধেও।

ব্রেকিংনিউজ/এএইচ/এমআর