bnbd-ads
bnbd-ads

পাঁচদিন ধরে নিখোঁজ ইবি শিক্ষার্থী মামুন

ইবি করেসপন্ডেন্ট
১২ জুন ২০১৯, বুধবার
প্রকাশিত: ০৬:১৬ আপডেট: ০৬:১৬

পাঁচদিন ধরে নিখোঁজ ইবি শিক্ষার্থী মামুন

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) আল কোরআন এন্ড ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী আবদুল্লাহ আল মামুন কুষ্টিয়া থেকে নিজ বাড়ি সাতক্ষীরা ফেরার পথে নিখোঁজ হয়েছেন। গত শনিবার (৮ জুন) নিখোঁজ হওয়ার পর থেকে পাঁচ দিন হয়ে গেলেও খোঁজ মেলেনি তার। 

এদিকে নিখোঁজের শ্বশুর আবদুল গফফারের কাছে ফোন করে গত সোমবার (১০ জুন) রাতে অপরিচিত একটি নাম্বার থেকে মুক্তিপণ হিসেবে ৪০ হাজার টাকা দাবি করা হয় এবং টাকা পাঠানোর জন্য তারা একটি বিকাশ নাম্বার দেয় বলেও জানান তিনি।

নিখোঁজ আবদুল্লাহ আল মামুনের বাড়ি সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগর থানার কাশিমাড়ী ইউনিয়নের ঘোলা গ্রামে। তার পিতার নাম সিদ্দিক মোল্লা। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনার পাশাপাশি কুষ্টিয়ার বটতৈল এলাকার একটি মসজিদে ইমামতি করতেন। 

নিখোঁজের শ্বশুর আবদুল গফফার জানান, সোমবার রাত থেকে অপরিচিত ০৯৬৩৮২১৪৬৫৯ এই নম্বর থেকে ফোন করে মুক্তিপণ হিসেবে ৪০০০০টাকা দাবি করা হয়। তারা মামুনের সঙ্গে কথা বলতে চাইলে, সে অজ্ঞান অবস্থায় রয়েছে বলে জানানো হয়।

এ ঘটনায় আবদুল্লাহ আল মামুনের বাবা সিদ্দিক মোল্লা ইবি থানায় একটি জিডি করেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন ইবি থানার ওসি রতন শেখ। তদন্ত শুরু হয়েছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

বাড়ি যাওয়ার পথে মামুনের কাছে একটি ল্যাপটপ ও ১৪ হাজার টাকা ছিল বলে পারিবারিক সূত্রে জানা যায়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রক্টর (ভারপ্রাপ্ত) ড. আনিছুর রহমান বলেন ইবি থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা আছে। আমরা তার সমস্ত তথ্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে দিয়েছি। তারা ছেলেটির উদ্ধারের ব্যাপারে সর্ব্বোচ্চ চেষ্টা করছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রতন শেখ বলেন, ‘থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা আছে। তাকে উদ্ধারের জন্য আমরা চেষ্টার কোনও ত্রুটি রাখছি না। মোবাইল ট্রাকিং অনুযায়ী তার সর্বশেষ অবস্থান নিজ জেলা সাতক্ষীরায়।’

সুস্থতার জন্য ৪০০০০ হাজার টাকা দাবির প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘ফোনটি কোনো ভ্যালিড নাম্বার থেকে আসে নাই। তার ফ্যামিলিকে আমরা টাকা লেনদেন না করার পরামর্শ দিয়েছি।’

ব্রেকিংনিউজ/এমএইচকে/জেআই