ধর্ষকের প্রকাশ্য মৃত্যুদণ্ড চেয়ে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি

ঢাবি করেসপন্ডন্ট
১১ জুলাই ২০১৯, বৃহস্পতিবার
প্রকাশিত: ১০:১৫

ধর্ষকের প্রকাশ্য মৃত্যুদণ্ড চেয়ে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি

ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিতের লক্ষ্যে দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল গঠন করে ৩০ দিনের মধ্যে প্রকাশ্যে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের দাবিতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নারী শিক্ষার্থীরা।

দুই দফা দাবিতে তারা এ স্মারকলিপি প্রদান করেন-ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যদণ্ড প্রদান এবং বিশেষ বিচার ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে বিচার কাজ সমাপ্ত ও রায় দিয়ে মৃত্যুদণ্ড প্রকাশ্যে কার্যকর করা।

বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) সন্ধ্যা ৬ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন ছাত্রী প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে গিয়ে এ স্মারকলিপি প্রদান করেন। প্রধানমন্ত্রী বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া স্মারকলিপিটি গ্রহণ করেন। এসময় প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচটি ইমাম উপস্থিত ছিলেন।



ঢাবি শিক্ষার্থীদের মধ্যে স্মারকলিপি দিতে যান- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী জিয়াসমিন শান্তা, সায়মা আক্তার প্রমি, শেহেরজান হক, নুসরাত ও ফারজানা লিনা প্রমুখ।

এ বিষয়ে ছাত্রী জিয়াসমিন শান্তা বলেন, বিকেলে রাজু ভাস্কর্যে মানববন্ধন শেষে আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের পক্ষ থেকে ৫ জন সাধারণ শিক্ষার্থী প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দিতে গিয়েছি। প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া স্মারকলিপিটি গ্রহণ করেছেন।



এর আগে সকাল ১০টায় একই দাবিতে রাষ্ট্রপতির কাছে স্মারকলিপি দিতে বঙ্গভবনে যান ঢাবি শিক্ষার্থী- ইশাত কাসফিয়া ইরা, মাকসুদা আক্তার তমা, জিয়াসমিন শান্তা ও সাবরিনা তাবাসসুম নিথিয়া। রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব স্মারকলিপিটি গ্রহণ করেন।

ইশাত কাসফিয়া ইরা গণমাধ্যকে বলেন, ‘ধর্ষণ বেড়ে গেছে, এটি বর্তমানে হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। ধর্ষণের কারণে সরকারের উন্নয়ন ম্লান হয়ে যাচ্ছে। দেশের প্রায় অর্ধেক জনসংখ্যা নারী। এই নারীদের ঝুঁকির মধ্যে রেখে টেকসই উন্নয়ন সম্ভব নয়।’

ব্রেকিংনিউজ/ এসএ 

bnbd-ads
bnbd-ads