জবির সম্মেলনে ছাত্রলীগ কর্মীর মৃত্যু, দায় নেবে কে?

আরমান হাসান, জবি করেসপন্ডেন্ট
২১ জুলাই ২০১৯, রবিবার
প্রকাশিত: ১০:৩৫ আপডেট: ১১:২০

জবির সম্মেলনে ছাত্রলীগ কর্মীর মৃত্যু, দায় নেবে কে?

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) শাখা ছাত্রলীগের বার্ষিক সম্মেলনে এক ছাত্রলীগ কর্মীর মৃত্যুতে মর্মাহত হয়েছেন ছাত্রলীগের সাবেক ও বর্তমান নেতাকর্মীরা। প্রচণ্ড গরম উপেক্ষা করে শনিবার (২০ জুলাই) সকাল থেকে নেতাকর্মীদের সঙ্গে স্লোগানে স্লোগানে প্রকম্পিত করে তুলেছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস। তবে শেষ পর্যন্ত মৃত্যুর কাছে হার মানতে হলো সুলতান মো. ওয়াসিকে। প্রশ্ন উঠেছে, জবির ইংরেজি বিভাগে ১১তম ব্যাচের ২০১৫-২০১৬ সেশনের এই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর জন্য দায়ী কে? ছাত্রলীগের সম্মেলন যথাসময়ে শুরু হলে কি এমন ঘটনা ঘটতো? সম্মেলন বিকেলে দিলে কী হতো? এমন অনেক প্রশ্ন মনে জাগছে নেতাকর্মীদের মনে।

ছাত্রলীগের সাবেক ও বর্তমান নেতারা মনে করছেন, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক যথাসময়ে সম্মেলন শুরু করলে এমন ঘটনা নাও ঘটতে পারতো। তাদের দায়িত্বহীনতার কারণে এমন ঘটনা ঘটেছে বলে মনে করেন নেতাকর্মীরা। সম্মেলনে প্রধান অতিথি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল আসার প্রায় আড়াই ঘণ্টা পরে ক্যাম্পাসে আসেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের সাবেক নেতারা দীর্ঘক্ষণ জবি উপাচার্য়ের কনফারেন্সরুমে বসে ছিলেন। প্রধান অতিথির বক্তব্য দিতে গেলে আসাদুজ্জামান খান কামাল বক্তব্যের শুরুতে বলেন, ‘আমি তো সময় মতো এসেছিলাম। কিন্তু শোভন-রব্বানী দেরি করেছে।’

প্রত্যক্ষদর্শী ছাত্রলীগ কর্মীরা ব্রেকিংনিউজকে জানান, সকাল ১১টার সম্মেলন শুরু হয় বিকেল ৩টায়। প্রচণ্ড গরমেও সকাল থেকে স্লোগান দিতে থাকেন ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। ফলে টানা ৭-৮ ঘণ্টার গরম সহ্য করতে না পেরে অসুস্থ হন ওয়াসিসহ বেশ কয়েকজন ছাত্রলীগ কর্মী। তবে ওয়াসির অবস্থা কিছুটা গুরুত্বর মনে হলে সঙ্গে সঙ্গেই তাকে  জবি ক্যাম্পাসের পাশেই ন্যাশনাল মেডিকেলে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক ওয়াসিকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ বিষয়ে জবি ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শেখ জয়নুল আবেদীন রাসেল ব্রেকিংনিউজকে বলেন, ‘এই বিষয়টা অনেক পীড়াদায়ক, বেদনাদায়ক। সম্মেলন যথাসময়ে শুরু করতে না পারা কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ ও সভাপতির ব্যর্থতা। তারা যদি যথাসময়ে সম্মেলন শুরু করতেন তাহলে হয়তো এমন ঘটনা নাও ঘটতে পারতো।’

তিনি আরও বলেন, ‘জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে এমনিতেই জায়গার সংকট। প্রচণ্ড গরমের কথা বিবেচনা করে তাদের আরও আগে সময়মতো সম্মেলনস্থলে আসা উচিত ছিল। আশা করি এরপর থেকে তারা দায়িত্বশীল হবেন।’

এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সাহিত্য সম্পাদক মো. সাফায়েতুল্লাহ বলেন, ‘আমাদের প্রধানমন্ত্রী নিজেও যেকোনও সম্মেলনে যথাসময়ে উপস্থিত হন। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতা হিসেবে তাদেরও সময়ের কাজ সময়ে করা উত্তম। আমি শুনেছি, তারা নির্ধারিত সময়ের সাড়ে ৩ ঘণ্টা পরে সেখানে গিয়েছিলেন।’

ব্রেকিংনিউজকে তিনি আরও বলেন, ‘ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতারা যদি সঠিক সময়ে সম্মেলন শুরু করতে নাই পারবেন তাহলে একদিন আগে ঘোণানা দিলেই হতো। তারা দায়িত্বহীনতার পরিচয় না দিলে এমন ঘটনা হয়তো ঘটতো না।’

উল্লেখ্য, প্রেমঘটিত বিষয়ে সংঘর্ষের জেরে তরিকুল-রাসেল কমিটি গত ১৯ ফেব্রুয়ারি বিলুপ্ত করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। কমিটি বিলুপ্তির প্রায় ৬ মাস পরে নানা অসঙ্গতি, আপত্তি মুখে জবির সম্মেলন সম্পন্ন হলো। 

ব্রেকিংনিউজ/এএইচ/এমআর

breakingnews.com.bd
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা, ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫, ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা,
  ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫,
 ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
© ২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি