এন্টিবায়োটিকের বিরুদ্ধে সচেতনতা গড়ে তুলতে হবে: জবি উপাচার্য

জবি করেসপন্ডেন্ট
২১ জুলাই ২০১৯, রবিবার
প্রকাশিত: ০৩:৩২

এন্টিবায়োটিকের বিরুদ্ধে সচেতনতা গড়ে তুলতে হবে: জবি উপাচার্য

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) শিক্ষক সমিতি কতৃক আয়োজিত মানববন্ধনে এন্টিবায়োটিকের বিরুদ্ধে সচেতনতা গড়ে  তোলার আহ্বান জানান জবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান।

রবিবার (২১ জুলাই) বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে ঢাবির অধ্যাপক আ ব ম ফারুকের প্রতি সংহতি জানিয়ে মানববন্ধন করে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি  ।

এসময় উপাচার্য বলেন, ‘দুধের মধ্যে কি কি আছে এটা বের করা গবেষণার পর্যায়ে পরে না । দুধের মধ্যে কি কি আছে এটা বের করা বিএসটিআই বা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগগুলোও এটা বের করতে পারে। প্যাকেটজাত দুধগুলো যারা তৈরি করে তারা এন্টিবায়োটিক মেশায় না। দুধের মধ্যে সরাসরি এন্টিবায়োটিক মেশানো যায় না। এই এন্টিবায়োটিক এর জন্যে পশুপালন অধিদফতর ও যেখানে পশুর জন্যে খাদ্য উৎপাদিত হয় সেখানে নজর দিতে হবে কারণ পশুর খাদ্যে এন্টিবায়োটিক মেশানো হলে তা দুধে প্রবেশ করে। আমাদেরকে এন্টিবায়োটিকের বিরুদ্ধে সচেতনতা গড়ে তুলতে হবে, তাহলে এটা রোধ করা যাবে। যদি আমরা দুধ খাওয়া বন্ধ করি তাহলে আমাদের দুধ শিল্প ধ্বংস হয়ে যাবে এবং গরীব মানুষ যারা দুধ উৎপাদনে নিয়োজিত তাদের জীবনযাত্রায় ব্যাঘাত ঘটবে।’

এছাড়া তিনি আরও বলেন, ‘অধ্যাপক আ ব ম ফারুকের এই সাহসী উদ্যোগের জন্যে তাকে আমি সাধুবাদ জানাই এবং তাকে হুমকি না দিয়ে তার পাশে দাঁড়াতে সংশ্লিষ্টদেরকে আহ্বান জানান।’

এসময় মানববন্ধনে  বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিভাগের শিক্ষকবৃন্দ এবং শিক্ষক সমিতির সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ফারুকের নেতৃত্বে ফার্মেসি বিভাগের কয়েকজন শিক্ষক একটি গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ করেন। বাজারে প্রচলিত বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ৭২টি খাদ্যপণ্য নিয়ে ওই প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। এই গবেষণায় বিভিন্ন ব্র্যান্ডের সাতটি প্যাকেটজাত (পাস্তুরিত) দুধের নমুনা পরীক্ষা করে সেগুলোতে মানুষের চিকিৎসায় ব্যবহৃত শক্তিশালী এন্টিবায়োটিক উপস্থিতির কথা বলা হয়।

ব্রেকিংনিউজ/এএইচ/জেআই

bnbd-ads