বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শারীরিক সম্পর্ক, ইবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটি

ইবি করেসপন্ডেন্ট
২১ জুলাই ২০১৯, রবিবার
প্রকাশিত: ০৭:৪২

বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শারীরিক সম্পর্ক, ইবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটি

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) টুরিজম এন্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. মাহবুবুল আরফিনের বিরুদ্ধে ওঠা নারী কেলেঙ্কারির অভিযোগ তদন্তের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯ সদস্যবিশিষ্ট যৌন নিপীড়ন কমিটিকে তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন প্রদানের আদেশ প্রদান করা হয়েছে।

রবিবার (২১ জুলাই) বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ভারপ্রাপ্ত এস এম আব্দুল লতিফ স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা যায়।                            

বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের এক ছাত্রীর সঙ্গে বহুবার শারীরিক সম্পর্ক করেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) টুরিজম এন্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের অধ্যাপক ড. মাহবুবুল আরফিন। সেই ছাত্রী ড. আরফিনের কক্ষে আপত্তিকর অবস্থায় এক ম্যাডামকে দেখেন। তারপর থেকে বিয়ের কথা বলতে গেলে আরফিন রেগে যান এবং উক্ত ছাত্রীকে এড়িয়ে চলেন। বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়েও বিয়ে না করার কারণে ওই ছাত্রী প্রতারণার বিচার চেয়ে উপাচার্য বরাবর আবেদন করেছে। এ আবেদনে উক্ত শারীরিক মেলামেশার কথা উল্লেখ করেন এ ছাত্রী।

ড. আরফিন ও ছাত্রীর মধ্যকার অশোভন অডিও কথোপকথনও আবেদনের স্বপক্ষে জমা দেয়া হয়েছে। এছাড়া অডিও কথোপকথন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে ও বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশ হয়েছে।

বর্ণিত অভিযোগটির তদন্তপূর্বক ঘটনার সত্যাসত্য নির্ণয়করণ, ঘটনার সাথে জড়িত দোষী ব্যক্তি চিহ্নিতকরণ ও ভবিষ্যতে এরুপ ঘটনা সংঘটিতরোধে করণীয় পরামর্শের জন্য ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন নিপীড়ন ও  নারী নির্যাতন অভিযোগ কমিটির আহ্বায়ক ড. নাসিক বানুকে অনুরোধ করা হয়েছে।

উল্লেখ, ড. আরফিন জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে নিজ ভাইকে নিয়োগ দিতে গিয়ে আজীবনের জন্য কালো তালিকাভুক্ত হয়েছিলেন।   

ব্রেকিংনিউজ/এমএইচকে/জেআই                

bnbd-ads