জাবিতে সাংবাদিক লাঞ্ছিতর ঘটনায় ইবি রিপোর্টার্স ইউনিটির নিন্দা

ইবি করেসপন্ডেন্ট
২৫ আগস্ট ২০১৯, রবিবার
প্রকাশিত: ০৩:৩৫

জাবিতে সাংবাদিক লাঞ্ছিতর ঘটনায় ইবি রিপোর্টার্স ইউনিটির নিন্দা

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম কর্তৃক বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত দুই সাংবাদিকের লাঞ্ছনার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও প্রগতিশীলতায় বিশ্বাসী সাংবাদিক সংগঠন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার্স ইউনিটি।

শনিবার (২৪ আগস্ট) রাতে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি আবু সালেহ শামীম ও সাধারণ সম্পাদক মাহফুজ আহমেদ এক যৌথ বিবৃতিতে এ নিন্দা ও প্রতিবাদ জানায় বলে দপ্তর সম্পাদক মুরতুজা হাসান কর্তৃক স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে জানা যায়। 

জানা যায়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম আলোর প্রতিনিধি মাইদুল ইসলাম এবং বাংলাদেশ প্রতিদিনের প্রতিনিধি শরিফুল ইসলাম সীমান্ত গত ২২ আগস্ট ২০১৯ তারিখে বিশ্ববিদ্যালয়ের চলমান বিভিন্ন বিষয়ে সংবাদের প্রয়োজনে বক্তব্য জানার জন্য উপাচার্যের কার্যালয়ে আলোচনার এক পর্যায়ে বিশ্ববিদ্যালয় উন্নয়ন প্রকল্পের ২ কোটি টাকা ছাত্রলীগের মধ্যে বন্টনের অভিযোগ সম্পর্কে উপাচার্যের বক্তব্য জানতে চাইলে উপাচার্য সাংবাদিকদের উপর প্রচন্ড রেগে যান। এমন প্রশ্ন করার সাহস কোথায় পেল বলে সাংবাদিক কে ধমকাতে থাকেন। এ সময় উপাচার্য প্রক্টরকে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে ছাত্র শৃঙ্খলা বিধিতে ব্যবস্থা নিতে বলেন এবং সাংবাদিকদের বিভাগীয় সভাপতি কে ডেকে পাঠান। একপর্যায়ে উপাচার্য সাংবাদিকদের ছবি তুলে রাখার নির্দেশ দিলে পরিসংখ্যান বিভাগে সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ আশরাফুল আলম তাদের ছবি তুলে রাখেন। দীর্ঘ সময় ধরে ধমকাধমকি করেন এবং নানা হুমকি প্রদান করেন।

বিবৃতিতে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বলেন, এ ধরনের ন্যক্কারজনক এহেন ও অশোভন আচরণ সাংবাদিকদের মতো স্বাধীন পেশা কে প্রতিনিয়ত বাধার সৃষ্টি করছে। সাংবাদিকদের ছবি তুলে রাখা চরম অশোভন ও তাদের শিক্ষা জীবনের জন্য হুমকি স্বরূপ। বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য ফারজানা ইসলাম অতি দ্রুত সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের সাথে বসে এই ন্যক্কারজনক ঘটনার যথাযোগ্য ব্যাখ্যা দিয়ে ক্যাম্পাসে সাংবাদিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে অচিরেই প্রশাসনকে এ ধরনের এহেন আচরণ থেকে বেরিয়ে আসবেন বলে আহ্বান জানান।

ব্রেকিংনিউজ/এমজি