আবরার স্মরণে মোমবাতি হাতে শিক্ষার্থীদের মৌন মিছিল

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
৯ অক্টোবর ২০১৯, বুধবার
প্রকাশিত: ১১:১৮

আবরার স্মরণে মোমবাতি হাতে শিক্ষার্থীদের মৌন মিছিল

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী আবরার হত্যার প্রতিবাদে ও হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত এবং বুয়েট ক্যাম্পাসে ছাত্র ও শিক্ষক রাজনীতি বন্ধের দাবিতে মোমবাতি জ্বালিয়ে স্মরণ করেছেন তার সহপাঠী ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

বুধববার (০৮ অক্টোবর) সন্ধ্যা ৭টার দিকে মোমবাতি জ্বালিয়ে নিহত আবরার ফাহাদকে স্মরণ ও তার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন তারা।

বুয়েট ক্যাম্পাসের শহীদ মিনারে হাতে জ্বলন্ত মোমবাতি নিয়ে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে কিছুক্ষণ নীরবতা পালন শেষে মৌন মিছিল বের করেন। মৌন মিছিলটি বুয়েট ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ শেষে আবার শহীদ মিনারে এসে শেষ হয়।

এ কর্মসূচিতে শুধু বুয়েটের ছাত্র-ছাত্রীরাই নয়, ঢাকার বেশকিছু স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশ নেয়। এছাড়াও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়সহ সারা দেশের অনেকগুলো জেলায় শিক্ষার্থীরা মোমবাতি জ্বালিয়ে আবরার হত্যার প্রতিবাদ জানিয়েছে।

মোমবাতি প্রজ্জ্বলন কর্মসূচিতে আসা নিহত আবরার ফাহাদের সহপাঠী শ্রাবণী জানান, মোমবাতি জ্বালানোর মাধ্যমে আমরা আবরারকে স্মরণ করছি। এটা একটা মৌন প্রতিবাদও বলতে পারেন। অনেকের চোখ আছে কিন্তু সেই চোখে আলো নেই। আমরা মোমবাতি জ্বালিয়ে তাদের আলোর পথ দেখাতে চাই।

এ কর্মসূচিতে ভিকারুননিসা নূন স্কুলের ছাত্রী অরিত্রী হত্যা ও আবরার হত্যা একই সূত্রে গাঁথা লেখা বেশকিছু ব্যানারও দেখা যায় অনেক শিক্ষার্থীর হাতে।

গত রবিবার (৬ অক্টোবর) রাতে বুয়েটের শেরেবাংলা হলের ২০১১ নম্বর কক্ষে ডেকে নিয়ে আবরারকে পিটিয়ে হত্যা করে বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। ৫ অক্টোবর নিজের ফেসবুক আইডি থেকে করা এক স্ট্যাটাসের জেরে তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় আবরারের বাবা বরকতউল্লাহ ১৯ জনকে আসামি করে সোমবার রাজধানীর চকবাজার থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ মামলার এজাহারভুক্ত ১২ আসামিসহ মোট ১৩ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতার আসামিদের সবাইকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে। গ্রেফতার ১৩ জনই বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মী।

ব্রেকিংনিউজ/টিটি/এমজি

bnbd-ads