‘এমডির বক্তব্য শতভাগ সঠিক, কেউ অসুস্থ হলে দায় ওয়াসার’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
২৩ এপ্রিল ২০১৯, মঙ্গলবার
প্রকাশিত: ০৩:৫৪

‘এমডির বক্তব্য শতভাগ সঠিক, কেউ অসুস্থ হলে দায় ওয়াসার’

ওয়াটার অ্যান্ড সুয়ারেজ অথরিটি-ওয়াসার পানি খেয়ে কেউ অসুস্থ হলে তার দায়ভার নেবে ওয়াসা। ওয়াসার পানি শতভাগ সুপেয়; ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) তাসকিম এ খানের বক্তব্যকে সমর্থন করে এমনটাই জানিয়েছেন ওয়াসার পরিচালক (কারিগরি) প্রকৌশলী এ কে এম সহিদ উদ্দিন। 

মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে ওয়াসা ভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা জানান।

মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) সকাল ১১টায় রাজধানীর কারওয়ান বাজারে ওয়াসার প্রধান কার্যালয় ওয়াসা ভবনের সামনে ওয়াসার এমডির বক্তব্য প্রত্যাহার এবং পদত্যাগের দাবি জানাতে আসেন জুরাইন এলাকার বাদিন্দারা। 

ওয়াসার এমডির বক্তব্যের প্রতিবাদে তাকে ওয়াসার পানি দিয়ে তৈরি শরবত পান করাতে আসলেও কার্যালয়ে ছিলেন না এমডি তাসকিম এ খান। তাকে না পেয়ে এক পর্যায়়ে ওয়াসার ভবনের সামনে অবস্থান কর্মসূচি নিলে তাদের সাথে বৈঠকে বসেন ওয়াসার পরিচালক এ কে এম সহিদ উদ্দিন। 

পরিচালকের কার্যালয় ওয়াসা এমডির বক্তব্যের প্রতিবাদ জানালে সহিদ উদ্দিন বলেন, ‘তার (এমডি) বক্তব্য শতভাগ সঠিক। আমি নিজেও আমার বাসায় ওয়াসার পানি সরাসরি পান করি। কারণ আমাদের যে গভীর নলকূপ থেকে পানি নিই আমাদের সেই পানি শতভাগ নিরাপদ। এছাড়াও পানি উৎপন্ন স্থল, রিজার্ভে দেওয়ার আগে ও পরে তিন দফা পরীক্ষা করা হয়। পানিতে মানুষের জন্য ক্ষতিকর বিশেষ করে ই-কোলাই পাওয়া গেলে প্রয়োজনীয় ক্লোরিন দিয়ে তা বিশুদ্ধ করা হয়।’

ওয়াসার এমডির বক্তব্যে আশ্বস্ত হয়ে কেউ ওয়াসার পানি পান করে অসুস্থ হলে তার দায়ভারকে নেবে? মিজানুর রহমানের এমন প্রশ্নের জবাবে সহিদ উদ্দিন বলেন, ‘আমি নিজেই নেব। ওয়াসা নেবে।’

তবে গভীর রাতে ওয়াসার বাইরের লোকজনদের লাইনে খুরোখুরির কারণে পানিতে ময়লা আসে বলে দাবি করেন তিনি। বলেন, ‘আমরা সব সময় লাইন নিরাপদ রাখার চেষ্টা করি। কিন্তু গুটি কয়েক মানুষের কারণে ওয়াসার পানির মান খারাপ হয়ে যায়।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি সাংবাদিকদের মাধ্যমে ওয়াসার সকল গ্রাহকদের জানাতে চাই। ওয়াসার ১৬১৬২ এই নম্বরের একটি জরুরি হেল্প লাইন রয়েছে। যেখানে ওয়াসার পানি নিয়ে যকোনো অভিযোগ করতে পারবেন। অভিযোগ করার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে আমরা ব্যবস্থা গ্রহণ করব।’

বৈঠকে মিজানুর রহমানের অভিযোগের প্রেক্ষিতে দ্রুত আশ্বাস নেয়ার নিশ্চয়তা দেন সহিদ উদ্দিন। এক পর্যায়ে মিজানুর রহমানের নিয়ে আসা পানি দিয়ে শরবত পানের আহ্বান জানালে সহিদ উদ্দিন বলেন, ‘আজ শরবত খাব না। ঐ এলাকার পানির সমস্যার সমাধান করে সেই পানি দিয়ে শরবত খাব।’

এদিকে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের মিজানুর রহমান বলেন, ‘আমরা ওয়াসার এমডির সাথে সাক্ষাৎ করতে আসছিলাম। আমরা তার পদত্যাগ চাই। যাই হোক, ওনাকে (সহিদ) আমাদের অভিযোগ শুনেছেন। দ্রুত সমাধান করবেন বলে জানিয়েছেন। আমরা দেখব তারা কি করেন।’

দ্রুত এই সমস্যার সমাধান না হলে জুরাইনবাসীসহ রাজধানীবাসীদের সাথে নিয়ে বৃহত্তর আন্দোলন করা হবে বলে জানিয়ে ওয়াসা ভবন ত্যাগ করে জুরায়েন এলাকার বাসিন্দারা। 

বৈঠকে ওয়াসা পরিচালকের সাথে ওয়াসার জনসংযোগ কর্মকর্তা তারেক মোস্তফা এবং মিজানুর রসমানের স্ত্রী-সন্তানসহ চার সদস্যের প্রতিনিধি দল উপস্থিত ছিলেন।

ব্রেকিংনিউজ/টিটি/ এসএ