ঈদ আনন্দের হাসি নেই টুপি বিক্রেতাদের মুখে

রাহাত হুসাইন
১০ আগস্ট ২০১৯, শনিবার
প্রকাশিত: ০৬:৩২ আপডেট: ০৬:৩৮

ঈদ আনন্দের হাসি নেই টুপি বিক্রেতাদের মুখে

দুয়ারে কড়া নাড়ছে ঈদুল আজহা। কাল বাদে পরশু ঈদ। ত্যাগের মাহিমায় উজ্জীবিত ঈদ আনন্দের হাসি নেই আতর-টুপি বিক্রেতাদের মুখে। ক্রেতা শূন্য আতর-টুপির ঈদবাজার। এবার ঈদুল আজহাকে ঘিরে আশানুরুপ বেচাকেনা করতে পারেনি আতর-টুপি বিক্রেতারা। আতর-টুপির দোকানগুলো প্রায় ক্রেতা শূন্য। হঠাৎ হঠাৎ দু’একজন ক্রেতা আসলেও কেউ কিনছে, আবার কেউ না কিনেই চলে যাচ্ছেন।

শনিবার (১০ আগস্ট) রাজধানীর বায়তুল মোকারম, গুলিস্তান, পল্টন, নিউমার্কেট, কাটাবন, কাকরাইলসহ বিভিন্ন মসজিদ মার্কেট ও ফুটপাত ঘুরে এই চিত্র দেখা গেছে।

জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকারমের মার্কেটের মুম্বাই আতর হাউজের বিক্রেতা আরমান হোসাইনের কাছে আতর-টুপির বেচাকেনা কেমন জানতে চাইলে তিনি ব্রেকিংনিউজকে বলেন, ‘দেখছেন না কাস্টমার নেই। বসে রয়েছি। কাস্টমার থাকলে তো বেচাকেনা ভালো হতো। কাস্টমার না থাকায় বেচাকেনাও জমে ওঠেনি। তবুও দোকান খুলে বসে আছি কাস্টমারের অপেক্ষায়। কাস্টমার সব গ্রামের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিয়েছে।’

একই বক্তব্য পাশের দোকানদার আবদুর রহমানেরও। তিনি মা এন্টারপ্রাইজের প্রোপাইটার। আবদুর রহমান ব্রেকিংনিউজকে বলেন, শুক্রবার জুম্মাবার হওয়ায় কিছুটা বেচাকেনা হয়েছে। তবে ঈদের বেচাকেনা এবার হয়নি, সাধারণ দিনের মতই বেচাকেনা। এবার মানুষজন আগে-ভাগেই ঢাকা ছেড়ে গেছে, তাই কাস্টমার আর ঢাকায় নেই।’

তিনি বলেন, ‘ঈদের সময় ফুটপাতে দোকানের সংখ্যা বেশি হয়, একারণে অনেক কাস্টমার আর মার্কেটে প্রবেশ করে না। বায়তুল মোকারম টুপি-আতর কিনতে আসে তাদের বেশির ভাগই বাহিরের ফুটপাত থেকেই বেশি কেনাকাটা করে।’



আবদুর রহমানের কথার সত্যতা মিললো বায়তুল মোকারম মসজিদ ঘেষা ফুটপাতে। সেখানে আতর-টুপির কিছু কাস্টমার দেখা গেছে। তবে ফুটপাতের আতর-টুপি বিক্রেতারাও বলছেন- বেচাকেনা কম হওয়ার কথা।

বায়তুল মোকারম ঘেষা ফুটপাতের আতর-টুপি বিক্রেতা মো. আনিসুর রহমান ব্রেকিংনিউজকে বলেন, ‘রোজার ঈদের তুলনায় কোরবানির ঈদে তেমন বেচাকেনা হয়নি। তবে স্বাভাবিক দিনের থেকে বেচাকেনা একটু ভালো। তবে এটাকে ঈদের বেচাকেনা বলা যাবে না।’

ঈদের বাজারে আতর নাকি টুপি কোনটা বেশি বিক্রি হচ্ছে- জানতে চাইলে ফুটপাতে আরেক দোকানী সিয়াম হোসেন ব্রেকিংনিউজকে বলেন, ‘ঈদে টুপিই বেশি বিক্রি হয়। নামাজের অন্যতম অনুষঙ্গ টুপি, তাই টুপি বেশি চলে। ব্যক্তির তার পছন্দ অনুযায়ী টুপি পছন্দ করে। আতরের বদলে অনেকে পারফিউম, বডি স্প্রে ব্যবহার করে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আতরের মধ্যে আমাদের দেশি ফুলের আতর যেমন বেলি, রজনীগন্ধা, হাসনাহেনা, বকুল বিক্রি ভালো হয়। বেলির আতরের কদর বেশি। তবে বিদেশী আতরের মধ্যে উদ-আলফি যারারও কদর রয়েছে। তসবী-জায়নামাজ রমজান মাসে বেশি চলে। কোরবানির ঈদে টুকিটাকি বেচাকেনা হয়।’

ব্রেকিংনিউজ/ আরএইচ/ এসএ