ঘরে বসে অ্যাপসে পূরণ করা যাবে ভাড়াটিয়া তথ্য ফরম

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, সোমবার
প্রকাশিত: ০৪:০৯ আপডেট: ০৪:৪৯

ঘরে বসে অ্যাপসে পূরণ করা যাবে ভাড়াটিয়া তথ্য ফরম

এখন থেকে মোবাইল অ্যাপসের মাধ্যমে রাজধানীর বাড়িওয়ালা ও ভাড়াটিয়ারা নিজেরাই নিজেদের তথ্য সহজ, নির্ভূল ও দ্রুত ফরম পূরণ করতে পারবেন। এই তথ্য সরাসরি ডিএমপির সার্ভারে জমা হবে। এতে করে ডিএমপি পুলিশ নগরবাসীদের জন্য কোনও ম্যাসেজ দিতে চাইলে মোবাইলের ম্যাসেজে কিংবা ইমেলে দ্রুততার সাথে দিতে পারবে।

তথ্য নিবন্ধনের জন্য ‘সিটিজেন ইনফরমেশন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম’ বা ‘সিআইএমএস’ নামের অ্যাপটি সোমবার (৯ সেপ্টেম্বর) সকালে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টার থেকে উদ্বোধন করেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া।

আজকের এই দিনটিকে নগরবাসীর জন্য শুভদিন ও ঐতিহাসিক দিন বলে ঘোষণা দিয়ে আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ‘এতদিন নাগরিকদের অ্যানালগ পদ্ধতিতে তথ্য ফরম পূরণ করে থানায় জমা দিতে হতো। আজ থেকে নাগরিকরা স্মার্ট ফোনের মাধ্যমে অ্যাপস ডাউনলোড করে তথ্য ফরম পূরণ করে জমা দিতে পারবেন।’

অপরাধ প্রতিরোধ ও প্রতিকারে পুলিশের দক্ষতা বৃদ্ধি করে সমাজ থেকে অপরাধ ভীতি দূর করা এবং জনসম্পৃক্ততা বৃদ্ধি করে পুলিশ ভীতি দূর করার লক্ষ্যে ২০১৫ সাল থেকে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ এলাকায় শুরু হয় বিট পুলিশিং প্রথা। অপরাধ ব্যবস্থাপনার জন্য নানাবিধ তথ্য সংগ্রহের অংশ হিসেবে মহানগরে বসবাসরত নাগরিকের তথ্য সংগ্রহ, সংরক্ষণ এবং ব্যবস্থাপনার লক্ষ্যে ২০১৬ সাল থেকে শুরু হয় নাগরিক তথ্য সংগ্রহের কার্যক্রম।

তথ্যে বহুবিধ ব্যবহার নিশ্চিতকল্পে প্রস্তুত করা হয় ‘সিটিজেন ইনফরমেশন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম-সিআইএমএস, যার যাত্রা শুরু হয় ২০১৬ সালের ১ সেপ্টেম্বর। বর্তমানে সিআইএমএস'র তথ্য ভান্ডারে ৭২ লক্ষেরও অধিক নাগরিক তথ্য সংগৃহীত আছে। নাগরিক তথ্য সংরক্ষিত থাকার কারণে মামলার রহস্য উদঘাটনে যেমন সহায়ক পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে, তেমনি অপরাধ প্রতিরোধে ডিএমপি'র দক্ষতা উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে।

আছাদুজ্জামান মিয়া আরও বলেন, বিশেষ করে তথ্য গোপন করে কিংবা ভুল তথ্য দিয়ে বাড়ি ভাড়া নেয়া প্রায় অসম্ভব বিধায় অপরাধী, সন্ত্রাসী ব্যক্তি বা গোষ্ঠী সহজে বাড়ি ভাড়া নিতে পারছে না। এজন্য আমরা সাধারণভাবে সম্মানিত নগরবাসী বিশেষ করে বাড়িওয়ালাদের প্রতি কৃতজ্ঞ। তথ্য সংগ্রহের প্রক্রিয়াটি আমরা এ পর্যন্ত ম্যানুয়ালি করে আসছি। বিট অফিসারবৃন্দ বাড়ি বাড়ি গিয়ে নির্ধারিত ফরমে তথ্য সংগ্রহ করে থানায় সংরক্ষিত কম্পিউটারে ডাটা এন্ট্রি দিচ্ছেন। ফলে এ প্রক্রিয়া যথেষ্ট গতিশীল নয়।

তিনি আরও বলেন, ‘বাড়িওয়ালা/ভাড়াটিয়ারা এর উপস্থিতি সবসময় নিশ্চিত না থাকার কারণে প্রক্রিয়াটি বিলম্বিত হচ্ছে এবং অপচয় হচ্ছে কর্মঘন্টা। এমতাবস্থায় তথ্য সংগ্রহ প্রক্রিয়া ডিজিটাল করার লক্ষ্যে সিআইএমএস নামক একটি অ্যাপলিকেশন তৈরি করা হয়েছে। যার ফলে-তথ্য ডিজিটালি সংগ্রহ করা সম্ভব হবে, কর্মঘণ্টা কমে আসবে এবং জনবলের সাশ্রয় হবে, ভুল তথ্য এন্ট্রি বা অসম্পূর্ণ তথ্য এন্ট্রি দেয়া কমে আসবে, নগরবাসীর সাথে সরাসরি যোগাযোগের দ্বার উন্মোচিত হবে ও বাড়িওয়ালা/ভাড়াটিয়ার ঠিকানা সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যাবে।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, সিআইএমএস মোবাইল অ্যাপসটি আজ থেকে গুগল প্লে-স্টোর এ  CIMS DMP লিখে সার্চ দিয়ে ডাউনলোড করা যাবে। কিছুদিন পর অ্যাপল স্টোর থেকেও CIMS DMP লিখে সার্চ দিয়ে ডাউনলোড করা যাবে। নগরবাসীর তথ্য সংগ্রহ কার্যক্রম ডিজিটাল সংগ্রহের পাশাপাশি ম্যানুয়ালি তথ্য সংগ্রহ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। প্রত্যেক নগরবাসী যার যার তথ্য নিজে নির্ভূলভাবে এই অ্যাপসে নিবন্ধন করতে পারবেন বলে জানান ডিএমপি কমিশনার।

ব্রেকিংনিউজ/ টিটি/ এসএ