মুখে কালো কাপড়-তালা, হাতে খাঁচা নিয়ে আবরার হত্যার বিচার দাবি

স্টাফ ক‌রেসপ‌ন্ডেন্ট
৮ অক্টোবর ২০১৯, মঙ্গলবার
প্রকাশিত: ০১:৫৪ আপডেট: ০২:৫২

মুখে কালো কাপড়-তালা, হাতে খাঁচা নিয়ে আবরার হত্যার বিচার দাবি

জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে প্রতিদিনই বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের মানববন্ধন, সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। তারই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবারেও জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এমন ৪ টি মানববন্ধন হচ্ছিল।

মঙ্গলবার বেলা ১১ টার দিকে একটি মানববন্ধনের সামনে উৎসুক মানুষের ব্যাপক ভিড়। সেই ভিড় ঠেলে সামনে গিয়ে দেখা গেল একটি ব্যানার হাতে মানববন্ধনে দাঁড়িয়েছেন ১০/১২ জন তরুণ। তারা এসেছেন বুয়েট ছাত্র আবরার হত্যার বিচারের দাবিতে। দাঁড়িয়েছেন ফিউচার অফ বাংলাদেশ নামক একটি সংগঠনের ব্যানারে। 

তাদের সবার মুখে কালো কাপড়, তার উপরে একটি করে তালা মারা। পাশেই একজন বড় একটি খাঁচা নিয়ে দাঁড়িয়েছেন। খাঁচার উপরে লেখা 'কথা বললেই বন্দী'। তারা এসেছেন বুয়েট ছাত্র আবরার হত্যার বিচারের দাবিতে।

প্রতিকী এই মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, আমরা আবরার হত্যার বিচার চাই। কতটা পাষণ্ড হলে একজন মানুষকে এভাবে পিটিয়ে হত্যা করা যায়। এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় যদি দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি না হয় তাহলে সাধারণ শিক্ষার্থী, সাধারণ মানুষ অত্যন্ত ক্ষুব্ধ হয়ে উঠবে। পুরো দেশবাসী এই হত্যাকাণ্ডের বিচারের দিকে তাকিয়ে আছে। যেহেতু এটা পুরো দেশবাসীর দাবি সেহেতু আমরা আশা করবো এই ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হোক।

বুয়েট ছাত্র আবরার কে পিটিয়ে হত্যার প্রতিবাদে প্রতিকী মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন আয়োজক সংগঠন ফিউচার অফ বাংলাদেশের সিনিয়র সহ- সভাপতি জামাল হোসেন টোয়েল, সহ-সভাপতি এড. মোজাম্মেল রেজাউল হোসেন অনিল, সাধারণ সম্পাদক শওকত আজিজ, যুগ্মসাধারণ সম্পাদক কে জি সেলিম, ফয়সাল প্রধান, সদস্য আল আমিন, জুয়েল আহমেদ প্রমুখ।

উল্লেখ্য, গত সোমবার (৭ অক্টোবর) ভোরে শেরে বাংলা হলের সিঁড়ি থেকে আবরারের মরদেহ উদ্ধার করে চকবাজার থানা পুলিশ। মধ্য রাতের দিকে তার মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করছে পুলিশ। 

বুয়েটের ডাক্তার মাসুক এলাহী বলেন, রাত ৩টার দিকে হলের শিক্ষার্থীরা আমাকে ফোন দেয়। আমি হলে গিয়ে সিঁড়ির পাশে ছেলেটিকে শোয়ানো অবস্থায় দেখতে পাই। ততক্ষণে ছেলেটি মারা গেছে।

আবরার হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে বুয়েটের ৯ জন ছাত্রলীগ নেতাকে আটক করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে চকবাজার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় আসামি করা হয়েছে ১৯ জনকে।

এছাড়া বুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সহ-সভাপতিসহ কমিটির ১১ নেতাকে বহিষ্কার করা হয়েছে। বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের হত্যাকাণ্ডের ঘটনার প্রাথমিক তদন্তের ভিত্তিতে তাদের বহিষ্কার করা হয়।

ব্রে‌কিং‌নিউজ/এএইচএস/এম

bnbd-ads