গৃহবধূ জাকিয়া হত্যা মামলার দ্রুত বিচার দাবি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
৮ আগস্ট ২০১৯, বৃহস্পতিবার
প্রকাশিত: ০৪:২৩ আপডেট: ০৭:০৩

গৃহবধূ জাকিয়া হত্যা মামলার দ্রুত বিচার দাবি

যৌতুকের দায়ে ২০১৬ সালে গোপালগঞ্জের গৃহবধূ জাকিয়াকে হত্যা করা হয়েছিলো। সেই হত্যা মামলা দ্রুত বিচারের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছে নিহতের পরিবার।  

বৃহস্পতিবার (৮ আগস্ট) বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে নিহতের পরিবারের সদস্যরা এ দাবি জানান। 

সংবাদ সম্মেলনে নিহত জাকিয়ার ভাই আছিম উদ্দিন মল্লিক বলেন, ‘আমার বোন জাকিয়াকে হত্যার প্রধান আসামি, ঘাতক স্বামী কারাগারে থাকলেও জামিনে থাকা অন্য আসামিরা বিভিন্ন উপায়ে কালক্ষেপণ করে বিচারে দীর্ঘসূত্রিতা করছে। এ অবস্থায় মামলাটির কার্যক্রম দ্রুত নিষ্পত্তি করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।’

নিহত জাকিয়ার ছোট ভাই আছিম উদ্দিন মল্লিক আরও বলেন, ‘২০০৫ সালে তার বোন জাকিয়া বেগমের বিয়ে হয় মোর্শেদায়ান নিশানের। বিয়ের পাঁচ বছর পর নিশান তার বোনের কাছে ১ কোটি টাকা যৌতুক দাবি করেন। এ নিয়ে সংসারে অশান্তি শুরু হয়। ২০১৬ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি রাতে নিশান, এহসান সুজন, আনিছুর রহমান, হাসান শেখ মিলে ধারালো অস্ত্র দিয়ে জাকিয়াকে কুপিয়ে হত্যা করে। এ ঘটনায় তার বাবা জালাল উদ্দিন মল্লিক বাদী হয়ে নিশানকে প্রধান আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘নিশান বর্তমানে জেল হাজতে এবং বাকি তিন আসামি জামিনে আছেন। তবে জেল থেকে নিশান প্রভাব খাটিয়ে মামলার কার্যক্রম বিলম্ব করছেন। তিনি বিভিন্ন কৌশলে এবং অসুস্থতার অযুহাত দেখিয়ে একের পর এক তারিখ নিচ্ছেন। বর্তমানে নিশান ঢাকা ক্দ্রেীয় কারাগার কেরানীগঞ্জে রয়েছেন। হত্যা মামলাটির দ্রুত বিচার সম্পন্ন করতে প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভাই আছিম উদ্দিন মল্লিক।’

ব্রেকিংনিউজ/আরএইচ/জেআই


 

bnbd-ads