বন্যার পানিতে ভাসছে সুনামগঞ্জ

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
১১ জুলাই ২০১৯, বৃহস্পতিবার
প্রকাশিত: ১১:২৮

বন্যার পানিতে ভাসছে সুনামগঞ্জ

পাহাড়ি ঢলে বন্যার পানিতে ভাসছে সুনামগঞ্জ। জেলার ১১ টি উপজেলার নদ-নদী ও হাওড়ের পানি বেড়েছে। বেশির ভাগ উপজেলার রাস্তাঘাট, হাট-বাজার, বসতবাড়ি, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, মসজিদ-মাদরাসার ভবনগুলোতেও পানি ঢুকে পড়েছে। এতে পানিবন্দি হয়ে পড়েছে জেলার লাখো মানুষ। বন্ধ রাখা হয়েছে দুই শতাধিক প্রাথমিক বিদ্যালয়। 

জানা গেছে, বন্যায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সদর, জামামলগঞ্জ, বিশ্বম্ভরপুর, দোয়ারাবাজার ও তাহিরপুর উপজেলা। এর মধ্যে তাহিরপুর ও বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার সড়ক যোগাযোগ বিছিন্ন হয়ে পড়েছে। এ দুই উপজেলার প্রায় ৮০ শতাংশই এখন পানির নিচে। জেলা প্রশাসক আব্দুল আহাদ জানিয়েছেন, বন্যায় সদর উপজেলায় ২৯৫০ পরিবার, জামামলগঞ্জে ১৮০০ পরিবার, বিশ্বম্ভরপুরে ১৪০০ পরিবার, দোয়ারাবাজারে ২৮০০ পরিবার ও তাহিরপুরে ৪১০০ পরিবার সরাসরি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। এছাড়া আরো লক্ষাধিক মানুষ বন্যায় আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের সাহায্যের জন্য আড়াই লক্ষ টাকা নগদ বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়া ৩০০ মেট্রিন টন চাল ও আড়াই হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার বিতরণ করা হবে। প্রত্যোক উপজেলায় আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে। খোলা হয়েছে কন্টোল রুম।

সুনামগঞ্জ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. জিল্লুর রহমান জানান, জেলার ২০০ শতাধিক প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্যার পানিতে প্লাবিত হয়েছে। এগুলোর পাঠদান স্থগিত করা হয়েছে। অবস্থার উন্নতি হলে আবার পাঠদান শুরু হবে। বর্ষা মৌসুমে হাওর এলাকায় এমনিতেই শিক্ষার্থীরা ঝুঁকি নিয়ে স্কুলে যাতায়াত করে। যেহেতু এখন বন্যা, তাই উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে, তারা কোনো স্কুল প্লাবিত হলে বা শিক্ষার্থীদের জন্য ঝুঁকি মনে করলে, সেটির পাঠদান স্থগিত করতে পারবেন।

ব্রেকিংনিউজ/এমজি

bnbd-ads