‘শিশু সুরক্ষা কমিটি’র সভাপতির বাড়িতে বাল্য বিয়ে!

জেলা প্রতিনিধি
১০ অক্টোবর ২০১৯, বৃহস্পতিবার
প্রকাশিত: ০১:০২ আপডেট: ০১:০৩

‘শিশু সুরক্ষা কমিটি’র সভাপতির বাড়িতে বাল্য বিয়ে!

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলা ‘শিশু সুরক্ষা কমিটি’র সভাপতি গোলাম ফারুক সোনার বিরুদ্ধে নিজ বাড়িতে বাল্য বিয়ের আয়োজন করার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার সিঙ্গিমারী ইউনিয়নের উওর ধুবনী গ্রামে।

গত মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) রাতে সভাপতির উওর ধুবনী গ্রামের নিজ বাড়িতে এ বাল্য বিয়ের আয়োজন হয় বলে জানা গেছে। 

অভিযুক্ত গোলাম ফারুক সোনা উওর ধুবনী গ্রামের তাইজুল ইসলামের পুত্র। তিনি রুপান্তর নামে একটি এনজিও’র শিশু সুরক্ষা কমিটির মাধ্যমে এ উপজেলায় বাল্য বিয়ে রোধে কাজ করে আসছেন ।

জানা গেছে, রুপান্তর নামে একটি এনজিও বাল্য বিয়ে রোধে হাতীবান্ধা উপজেলায় শিশু সুরক্ষা কমিটি গঠন করে। ওই কমিটি’র সভাপতির দায়িত্বে আছেন গোলাম ফারুক সোনা। গত মঙ্গলবার রাতে ওই উপজেলার উওর ধুবনী গ্রামে গোলাম ফারুক সোনা তার নিজ বাড়িতে একটি বাল্য বিয়ে সম্পন্ন করেন। বাল্য বিয়ের বর হলেন, একই এলাকার আকতার আলীর পুত্র ওমর আলী ও কনে হলেন পার্শ্ববর্তী পূর্ব সিন্দুনা গ্রামের চাম্পাফুল এলাকার এক স্কুল ছাত্রী। 

হাতীবান্ধা উপজেলা শিশু সুরক্ষা কমিটি’র সভাপতি গোলাম ফারুক সোনা তার নিজ বাড়িতে শিশু বিয়ের আয়োজন  করার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, কিছু মানুষ এসে অনুরোধ করে, তখন আমি বাধ্য হয়ে বাল্য বিয়ের আয়োজনে একটু সহযোগিতা করে থাকি মাত্র। 

সিঙ্গিমারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মনোয়ার হোসেন দুলু বলেন, উপজেলা শিশু সুরক্ষা কমিটি’র সভাপতি গোলাম ফারুক সোনা আমার জানা মতে এ পর্যন্ত ৩টি বাল্য বিয়ে দিয়েছেন। বিষয়টি আমি ওই কমিটি’র পৃষ্ঠপোষকতায় থাকা রুপান্তর নামক এনজিও’কে জানিয়েছি। 

হাতীবান্ধা উপজেলা শিশু সুরক্ষা কমিটি’র পৃষ্ঠপোষক এনজিও রুপান্তর’র এরিয়া ব্যবস্থাপক মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, বিষয়টি আমি জানতে পেরেছি। তদন্ত করে সত্যতা পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। 

হাতীবান্ধার ইউএনও সামিউল আমিন বলেন, বিষয়টি আমি জানতে পেরেছি। পুরো বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। 

ব্রেকিংনিউজ/এম