কে হচ্ছেন আরডিএ’র চেয়ারম্যান?

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
২৬ জুন ২০১৯, বুধবার
প্রকাশিত: ০১:৪৩

কে হচ্ছেন আরডিএ’র চেয়ারম্যান?

রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (আরডিএ) বর্তমান চেয়ারম্যানের মেয়াদ শেষ হচ্ছে আগামী ৩০ আগস্ট। ফলে এ পদে নিয়োগ পেতে এবার মাঠে নেমেছেন রাজশাহীর অন্তত হাফ ডজন আওয়ামী লীগ নেতা। ইতোমধ্যেই তারা কেন্দ্রে তদবির শুরু করেছেন বলে জানা গেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বর্তমান চেয়ারম্যান বজলুর রহমানের দুই দফায় মেয়াদ বাড়িয়ে ২০১৪ সাল থেকে রয়েছেন আরডিএর এই পদে। আগামী ৩০ আগস্ট তার ৫ বছর মেয়াদ শেষ হবে। চেয়ারম্যানের এই পদ ধরে রাখতে আবারো দৌড়-ঝাঁপ শুরু করেছেন তিনি বলে আরডিএর একটি সূত্র দাবি করেছেন। তবে তিনি পল্ট বরাদ্দের টাকা দিয়ে কর্মকর্তা কর্মচারিদের নিয়ে বিদেশ বৈভুমে অপচয় করার অভিযোগ আছে।  

বজলুর রহমান ছাড়াও রাজশাহীর আরো কয়েকজনের নাম শোনা যাচ্ছে চেয়ারম্যান পদে আসার তালিকায়। তাদের মধ্যে রয়েছেন, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও বিশিষ্ট সমাজ সেবী শাহীন আক্তার রেনী, সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বাদশা, আরেক সহ-সভাপতি নওসের আলী, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ।

জানা গেছে, বজলুর রহমান তৃতীয় দফায় মেয়াদ বৃদ্ধি করার জন্য গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ে দৌড়াদৌড়ি শুরু করেছেন। এর আগে প্রথমে তাঁকে এক বছরের জন্য চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়। পরে দুই দফায় দুই বছর করে সময় বৃদ্ধি করে মোট ৫ বছরের জন্য চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পান তিনি। সর্বশেষ বর্ধিত সময় অনুযায়ী আগামী ৩০ আগস্ট তার মেয়াদ শেষ হবে।

গত ৫ বছরে বর্তমান চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে নানা অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। রাজশাহীর বনলতা বাণিজ্যিক ও আবাসিক এলাকা উন্নয়ন প্রকল্পের মুল্যবান ৩১ প্লট বরাদ্দে অনিয়মের ঘটনায় তদন্ত নেমেছে দুদক। এর আগে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের নির্দেশে এই প্লট কেলেংকারির তদন্ত করছেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আবুল কাশেম। ফলে বর্তমান চেয়ারম্যানের মেয়াদ আর বৃদ্ধি না হওয়ার সম্ভাবনা বেশী বলে মনে করছেন অনেকেই।

এদিকে বর্তমান চেয়ারম্যান বজলুর রহমান আবারো চেয়ারম্যান পদে বহাল থাকতে তদবির শুরু করেছেন। এর বাইরে চেয়ারম্যান পদ যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তাদের মধ্যে রয়েছেন, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শাহীন আক্তার রেনী, সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বাদশা, আরেক সহসভাপতি নওসরে আলী, সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদের।

এদের মধ্যে শাহীন আক্তার রেনী উদিয়মান নেত্রী ও বিশিষ্ট সমাজ সেবক হিসেবে সুনাম রয়েছে নগরজুড়ে। তার স্বামী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন রাসিকের বর্তমান মেয়র। ফলে রাজশাহী নগরের পরিকল্পিত উন্নয়নের জন্য আরডিএর চেয়ারম্যান হিসেবে শাহীন আক্তার রেনীকে দেখতে চাইছেন খোদ আরডিএর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন কর্মকর্তা বলেন, ‘বর্তমান চেয়ারম্যানের কারণে অতিষ্ঠ আরডিএর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে তিনি যেসব কর্মকান্ড করে চলেছেন, সেগুলোর ভবিষ্যত দায়ভার নিয়েও শঙ্কিত তাঁরা। এই অবস্থায় তৃতীয় দফায় মেয়াদ বৃদ্ধি করে আবারো বজলুর রহমানকে চেয়ারম্যান করা হোক-এটি কেউই চাইছেন না। সে ক্ষেত্রে মেয়রপত্নী শাহীন আক্তার রেনীকে চেয়ারম্যান হিসেবে চান। এ ক্ষেত্রে অন্য কেহ ভাল মানসিকতার ব্যক্তি এলেও আরডিএ’র পদক্ষেপ ও কর্মকাণ্ড অনেকটাই স্বচ্ছ হবে’।

ব্রেকিংনিউজ/এমজি