রংপুরে ভোটার শূন্য নির্বাচন; যা বলছেন প্রার্থীরা

সোহেল রশীদ, রংপুর
৫ অক্টোবর ২০১৯, শনিবার
প্রকাশিত: ০২:৩২ আপডেট: ০৪:২৭

রংপুরে ভোটার শূন্য নির্বাচন; যা বলছেন প্রার্থীরা

নিরুত্তাপ ভোটগ্রহণ চলছে রংপুর-৩ আসনের উপ-নির্বাচনে। শনিবার (৫ অক্টোবর) সকাল ৯টায় শুরু হলেও ভোটারের উপস্থিতি নেই। ফলে অধিকাংশ কেন্দ্রই ফাঁকা অবস্থায় রয়েছে। বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শনের নিরুত্তাপ ভোটগ্রহণের এই চিত্র পাওয়া গেছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, ‘১১টা ৪৫ মিনিট পর্যন্ত রংপুর পুলিশ লাইন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভোট পড়েছে ৮৩টি। এই কেন্দ্রে ভোটার রয়েছেন ২ হাজার ৫৯ জন।

এই কেন্দ্রের প্রিজাইটিং অফিসার পুলিশ একেএম রবিউল ইসলাম এই তথ্য জানিয়ে বলেছেন, ‘আশা করছি দুপরের পর ভোটাররা বেশি আসবেন।’

এদিকে বেলা ১২টায় লায়ন্স স্কুল এন্ড কলেজের প্রিজাইটিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ আশরাফ জানান, ‘এই ভোট কেন্দ্রে ২ হাজার ৮১৩ টি ভোট রয়েছে। এর মধ্যে বেলা ১২টা পর্যন্ত ভোট পড়েছে মাত্র ৭৮টি।’

কালেক্টরেট স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রিজাইিটিং ফেরদৌস আলম জানান, ‘মোট ১ হাজার ৭৩৮ ভোটের মধ্যে বেলা ১১ টা পর্যন্ত ভোট পড়েছে ৬১টি।’

কেরামতিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের কেন্দ্রের প্রিজাইটিং অফিসার আজহারুল ইসলাম জানান, ‘তার কেন্দ্রে ভোট সংখ্যা ৩ হাজার ৬৪৯ টি।  এরমধ্যে বেলা সোয়া বারো টা পর্যন্ত ভোট পড়েছে মাত্র ২৫০ টি ভোট পড়েছে।’

নিসবেতগঞ্জ সরকারী প্রাথমিক আনোয়ার আল সাদাত মোল্লা জানান, ‘তার কেন্দ্রে ভোটার সংখ্যা ৩ হাজার ১৭। এর মধ্যে বেলা ১২টা ১০ মিনিট পর্যন্ত ভোট পড়েছে ২১৭টি।’

সকাল সোয়া ১০টার দিকে জাতীয় পার্টির প্রার্থী রাহগির আল মাহি এরশাদ ওরফে সাদ এরশাদ নগরীর কালেক্টরেট স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। ভোটার উপস্থিতি কমলেও নির্বাচন সুষ্ঠু হচ্ছে বলে দাবি করেন তিনি। তবে রংপুরের ভোটার না হওয়ায় তিনি ভোট দিতে পারছেন না।

তবে বিএনপি প্রার্থী রিটা রহমান বলেছেন, ‘নির্বাচন ও ইভিএম নিয়ে মানুষ আশাহত, এই নির্বাচনে জনসম্পৃক্ততা নেই। মানুষ ভোটের পরিবেশ সুষ্ঠু না হওয়ায় ভোটকেন্দ্রে ভোট দিতে আসছেন না।’

অপর দিকে জাতীয় পার্টির বিদ্রোহী প্রার্থী এরশাদের ভাতিজা মকবুল শাহরিয়ার ওরফে আসিফ শাহরিয়ার বলেছেন, ‘নির্বাচন সুষ্ঠু হচ্ছে। ইভিএমের (ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন) মাধ্যমে ভোটার হওয়ায় এবং উপনির্বাচনের কারণে ভোটার উপস্থিতি কম। তবে আস্তে আস্তে ভোটার সংখ্যা বাড়বে।’

রংপুর-৩ আসনটি সদর উপজেলার ৫টি ইউনিয়ন এবং রংপুর সিটি করপোরেশনের ৯ থেকে ৩৩টি মোট ২৫টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত। এর মধ্যে নগরীর  ২৫টি ওয়ার্ডে ভোটের চিত্র একই রকম হলেও ইউনিয়নগুলোতে কিছুটা ভোট বেশি পড়েছে বলে জানা গেছে। 

এ ব্যাপারে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও রংপুর আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা জিএম সাহাতাব উদ্দিন জানান, ‘শহর এলাকায় ভোটার উপস্থিতি কম থাকলেও ইউনিয়নগুলোতে ভোটার উপস্থিতি বেশি আছে। দুপুরের পর আরও বেশি ভোটার উপস্থিত হবেন।’

ব্রেকিংনিউজ/ এসএ 

bnbd-ads