‘বছরে দেশ থেকে পাচার হচ্ছে ৭৫ হাজার কোটি টাকা’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শনিবার
প্রকাশিত: ০৬:৩৮ আপডেট: ০৮:০৬

‘বছরে দেশ থেকে পাচার হচ্ছে ৭৫ হাজার কোটি টাকা’
প্রতীকী ছবি

বাংলাদেশ থেকে বছরে ৭৫ হাজার কোটি টাকা পাচার হচ্ছে বলে দাবি করেছেন প্রবীণ অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক ড. মইনুল ইসলাম। তিনি বলেছেন, ‘টাকা পাচারের ক্ষেত্রে এগিয়ে রয়েছেন গার্মেন্টস মালিকরা। কিন্তু এই খাতের ৩৫ লাখ শ্রমিক আগের মতোই দরিদ্রই থেকে গেছেন। বাংলাদেশে ধনাঢ্য ব্যক্তিদের আয় বাড়ার হার বিশ্বে সবচেয়ে বেশি।’

শনিবার (৭ সেপ্টেম্বর) রাজধানীতে এক সেমিনারে এসব কথা বলেন তিনি। ‘বাংলাদেশে ক্রমবর্ধমান আয়বৈষম্য: সমাধান কোন পথে?’ শীর্ষক সেমিনারের আয়োজন করে বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতি।

প্রবৃদ্ধি নিয়ে বাহাদুরির কিছু নেই মন্তব্য করে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক বলেন, ‘৮ দশমিক ১৩ শতাংশ মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) প্রবৃদ্ধির হার নিয়ে বাহাদুরি করার কিছু নেই। র্তমানে জিডিপির মাত্র দশমিক ২ শতাংশ ব্যয় হয় দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জীবন মান উন্নয়নে। এ ক্ষেত্রে আরও বরাদ্দ বাড়ানো প্রয়োজন।’

মইনুল ইসলাম বলেন, দেশে কোটিপতিদের সংখ্যা দ্রুত বাড়ছে। এর পেছনে ন্যক্কারজনক পন্থা হলো দুর্নীতিতে নিমজ্জিত হওয়া। এমন কোনো সরকারি সংস্থার নাম করা যাবে না, যেটা খানিকটা দুর্নীতিমুক্ত। এ ছাড়া বর্তমান জাতীয় সংসদে সাংসদদের ৬২ শতাংশই ব্যবসায়ী। এ সংসদ ব্যবসায়ীদের সংসদ এবং রাজনীতি এখন লোভনীয় ব্যবসায় পরিণত হয়েছে।

সেমিনারে অর্থনীতিবিদরা বলেন, ক্রমবর্ধমান আয় বৈষম্য মোকাবেলা করা দুরূহ কাজ, কিন্তু অসম্ভব নয়। এক্ষেত্রে রাষ্ট্রের শীর্ষ নেতৃত্বের সদিচ্ছা প্রয়োজন। কঠোর দিক নির্দেশনা দরকার। একই সঙ্গে জিরো টলারেন্সকে অগ্রাধিকার দিয়ে দুর্নীতি দমনে কঠোর বিধান প্রণয়নেরও তাগিদ দিয়েছেন তারা।

ব্রেকিংনিউজ/ এসএ