ভারতের পেঁয়াজ না আসা পর্যন্ত দাম ‘কিছুটা বেশি’ থাকবে: বাণিজ্যমন্ত্রী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
১৪ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার
প্রকাশিত: ১০:৫০

ভারতের পেঁয়াজ না আসা পর্যন্ত দাম ‘কিছুটা বেশি’ থাকবে: বাণিজ্যমন্ত্রী

গত মাসে হঠাৎ পেঁয়াজের দাম বেড়ে যায় কয়েকগুণ। তবে কয়েকদিন আমদানি করা পেঁয়াজ বিক্রি শুরু হলে কিছুটা কমে পেঁয়াজের দাম। তবে চলতি মাসের শুরু থেকে আবারও বাড়তে থাকে পেঁয়াজের ঝাঁঝ। আবারও ১১০টার ওপরে বিক্রি হচ্ছে দেশি পেঁয়াজ।

তবে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি জানিয়েছেন, ‘ভারত থেকে পেঁয়াজ না আসা পর্যন্ত দাম কিছুটা বেশি থাকবে। ভারত অক্টোবরের শেষে পেঁয়াজ রপ্তানির নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে পারে। ফলে আশা করা যাচ্ছে শিগগির পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণে আসবে।’

সোমবার (১৪ অক্টোবর) দুপুরে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে অসৎ উপায়ে পেঁয়াজ মজুদদারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার হুঁশিয়ারিও দেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, মিয়ানমারে দুইদিন তাদের ধর্মীয় একটি বড় উৎসব যাওয়ায় পেঁয়াজের সাপ্লাই বন্ধ ছিল। আর ভারত থেকে তো বন্ধই। আমি দেশে ছিলাম না। আজ সকালে দেশে ফিরেছি। তবে সচিব ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলেছেন। পেঁয়াজ আমদানির চেষ্টা করা হচ্ছে।’

মন্ত্রীর দাবি, ‘চলতি মাসের শেষের দিকে ভারত হয়তো তাদের পেঁয়াজ নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে পারে। তবে তা না হলে নভেম্বরে নিজেদের নতুন পেঁয়াজ না ওঠা পর্যন্ত সমস্যাটা থাকবে। এজন্য বিভিন্ন বাজার থেকে পেঁয়াজ আনার চেষ্টা করা হচ্ছে। এ সমস্যাটা আরও কয়েকদিন থাকতে পারে।’

পেঁয়াজ বাজার নিয়ন্ত্রণে গঠিত ১০ কমিটি কী করেছে জানতে চাইলে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘তারা বিভিন্ন বাজারে ও গোডাউনে গিয়েছে। সেখানে তারা দেখেছে কোথাও কোনো মজুদ আছে কি-না। এছাড়া কেউ অবৈধভাবে মজুদ করার চেষ্টা করেছে কি-না। এছাড়া টেকনাফে যেখানে মিয়ানমার থেকে পেঁয়াজ আসছে, সেখানেও মনিটরিং করছে।’

অবৈধ মজুদের বিষয়ে প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, কোথাও কেউ যদি মজুদ করে রাখে বা আটকে রাখে, সেটা বাজারে কী পরিমাণ আছে, কেন দাম বাড়াচ্ছে, এ বিষয়গুলো বিবেচনায় নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে জরিমানাসহ নানা ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

১৫ দিন আগে বলেছিলেন শিগগির পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণে আসবে, সেরকম কোন পরিস্থিতি দেখা যা নি, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন আমাদের একটু সইতে হবে। কিছুদিন কষ্ট করতে হবে। যেহেতু আমাদের উৎপাদনের ঘাটতি রয়েছে। অন্যের ওপর নির্ভর করতে হচ্ছে।

ব্রেকিংনিউজ/ এসএ