bnbd-ads
bnbd-ads

‘প্রশ্নফাঁস রোধে ফেসবুকে কড়া নজর রাখা হচ্ছে’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
১ এপ্রিল ২০১৯, সোমবার
প্রকাশিত: ১১:৩০ আপডেট: ০২:৩৮

‘প্রশ্নফাঁস রোধে ফেসবুকে কড়া নজর রাখা হচ্ছে’

প্রশ্নফাঁস রোধে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে কড়া নজর রাখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। তিনি আশা করছেন, প্রশ্নপত্র ফাঁস ছাড়াই এবার এইচএসসি পরীক্ষা শেষে হবে।

সোমবার (১ এপ্রিল) সকালে রাজধানীর সিদ্ধেশ্বরী গার্লস কলেজ পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন তিনি।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘ছাপাখানায় প্রশ্ন ছাপা হয়। তারপর এটা আর কেউ দেখেন না। বোর্ডের কেউ দেখেন না, মন্ত্রণালয়ের কেউ দেখেন না, কেউ দেখেন না। এই বিষয়গুলো জনগণের কিন্তু আসলে সেভাবে জানা নেই।’

পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে সবার সহযোগিতা কামনা করে তিনি বলেন, ‘যত বিশাল কর্মযজ্ঞই হোক, সবার যদি সহযোগিতা থাকে, তাহলে সেই কঠিন কাজও সহজ হয়ে যায়।’

প্রসঙ্গত, সারা দেশের ১০টি শিক্ষা বোর্ডে ২০১৯ সালের উচ্চমাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়েছে। সোমবার (১ এপ্রিল) সকাল ১০টায় পরীক্ষা শুরু হয়। চলবে দুপুর ১টা পর্যন্ত।

এবার দেশের ৯ হাজার ৮১টি প্রতিষ্ঠানের ১৩ লাখ ৫১ হাজার ৫০৫ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে। মোট পরীক্ষার্থীর মধ্যে ছাত্র ৬ লাখ ৬৪ হাজার ৪৯৬ জন এবং ছাত্রী ৬ লাখ ৮৭ হাজার ৯ জন। 

শিক্ষামন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, ৮টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডের আওতায় এইচএসসি পরীক্ষায় মোট অংশ নিচ্ছে ১১ লাখ ৩৮ হাজার ৭৪৭ জন। এরমধ্যে ছাত্র ৫ লাখ ৭৩ হাজার ৮১২ জন এবং ছাত্রী ৫ লাখ ৬৪ হাজার ৯৩৫ জন।

এছাড়াও কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীন ভোকেশনাল পরীক্ষায় ১ লাখ ২৪ হাজার ২৬৪ জন এবং মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের অধীন আলিম পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে ৮৮ হাজার ৪৫১ জন।

এবার দেশের বাইরের ৮টি কেন্দ্রে পরীক্ষার্থী রয়েছেন ২৭৫জন। এছাড়া প্রতিবন্ধী পরীক্ষার্থীদের জন্য বাড়তি ২০ মিনিট সময় বরাদ্ধ করা হয়েছে এবং অটিজমসহ বিশেষ বিবেচনার দাবি রাখে এমন শিক্ষার্থীদের ৩০ মিনিট বাড়তি সময় দেওয়া যাবে।

প্রতিবারের মতো এবারও পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগেই পরীক্ষার্থীদের কেন্দ্রে প্রবেশ করতে হবে।

উল্লেখ্য, লিখিত পরীক্ষা শেষ হবে ১১ মে। এরপর ১২ থেকে ২১ মের মধ্যে ব্যবহারিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

ব্রেকিংনিউজ/এনকে

bnbd-ads
MA-in-English
bnbd-ads