ঝুঁকিতে বেড়িবাঁধ, আতঙ্কে উপকূলবাসী

স্টাফ ক‌রেসপ‌ন্ডেন্ট
৯ নভেম্বর ২০১৯, শনিবার
প্রকাশিত: ০৯:০৫ আপডেট: ০৯:০৬

ঝুঁকিতে বেড়িবাঁধ, আতঙ্কে উপকূলবাসী
ঝুঁকিপূর্ণ বেড়িবাঁধ। ছবি : সংগৃহীত

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে উপককূলীয় নদীগুলোতে পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। উপকূলবাসীর মধ্যে দেখা দিয়েছে আতঙ্ক। পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় খুলনা, বাগেরহাট ও সাতক্ষীরার বিস্তীর্ণ এলাকার বেড়িবাঁধ ঝুকিতে রয়েছে। ভাঙ্গন আতঙ্কে সময় পার করছেন উপকূলবাসীরা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, উপকূলীয় এলাকার খুলনার কয়রা-দাকোপ, সাতক্ষীরার শ্যামনগর-আশাশুনি ও বাগেরহাটের বিভিন্ন এলাকার বেড়িবাঁধ ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। সিডর-আইলাসহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত এসব এলাকার মানুষ বেড়িবাঁধ ঝুঁকিপূর্ণ হওয়াও ভাঙ্গন আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন।

খুলনার কয়রা উপজেলার দক্ষিণ বেদকাশী ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য বেলাল হোসেন জানান, কয়রায় বেড়িবাঁধের বেশ কিছু এলাকা ঝুঁকিপূর্ণ। ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে নদীগুলোতে পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। যে কোনো সময় বাঁধ ভেঙ্গে আশেপাশের গ্রামগুলো তলিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। এতে ওই এলাকাগুলোয় সিডর-আইলার সময়কার পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে।

এদিকে বুলবুলের প্রভাবে শনিবার (৯ নভেম্বর) সকাল থেকে দমকা বাতাস ও বৃষ্টির তীব্রতা বেড়েছে। উপকূলজুড়ে সিডরের পূর্ব মুহুর্তের পরিস্থিতি বিরাজ করছে বলে জানান স্থানীয়রা।

ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে সতর্কতামূল মাইকিং করা হয়েছে। সকল সাইক্লোন সেন্টারগুলো প্রস্তুত রয়েছে। সেগুলোতে শুকনা খাবার, প্রয়োজনীয় ওষুধ ও অন্যান্য সামগ্রি প্রস্তুত রাখা হয়েছে। সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সার্বক্ষণিক খোলা রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে লোকজন আশ্রয় কেন্দ্রে যাওয়া শুরু করেছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড খুলনার উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মো. সাইদুর রহমান জানান ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবিলায় সব ধরনের পূর্ব প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। বেড়িবাঁধের ঝুঁকিপূর্ণ স্থান জরুরি ভিত্তিতে মেরামত করা হয়েছে। আশা করছি কোনও সমস্যা হবে না। নদীগুলোর পানি বৃদ্ধি সার্বক্ষণিক রেকর্ড করা হচ্ছে। মাঠপর্যায়ে লোকজন কাজ করছে।

ব্রেকিংনিউজ/এম

bnbd-ads