কাশ্মির ইস্যুতে পাকিস্তানের পাশে ৫০টি দেশ

ভারত-পাকিস্তান ডেস্ক
১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার
প্রকাশিত: ১০:৪৫ আপডেট: ১০:৪৬

কাশ্মির ইস্যুতে পাকিস্তানের পাশে ৫০টি দেশ

কাশ্মিরীদের ব্যাপারে অনেকটা ফিলিস্তিনিদের ওপর দখলদার ইহুদিবাদী বন্ধুরাষ্ট্র ইসরায়েলের পথ বেছে নিয়েছে নরেন্দ্র মোদির হিন্দুত্ববাদী বিজেপির সরকার। একতরফা ভাবে স্বায়ত্তশাসনসহ বিশেষ সাংবিধানিক অধিকার বাতিল করে কারাকারে পরিণত করে রেখেছে জম্মু-কাশ্মিরকে।

নির্যাতিত মজলুম কাশ্মিরীদের পাশে থাকার ঘোষণা দিয়েছে পাকিস্তান। প্রতিবেশী দেশটি এর তীব্র সমালোচনা করছে। এনিয়ে ভারতের সঙ্গে প্রায় যুদ্ধাবস্থা পাকিস্তানের। 

প্রতিশোধমূলক ব্যবস্থা হিসেবে ইমরান খানের সরকার ভারতের সঙ্গে বাণিজ্যিক-সাংস্কৃতিক সম্পর্ক ছেদ করার পাশাপাশি ইসলামাবাদ থেকে ভারতীয় হাইকমিশনারকে বহিষ্কার করে এবং দিল্লি থেকে নিজেদের রাষ্ট্রদূতকে ফিরিয়ে নেয়। বিষয়টি নিয়ে আন্তর্জাতিক আদালতে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে পাকিস্তান।

এইস্যুতে পাকিস্তানের পাশে থাকার ঘোষণা দিয়েছে তুরস্ক-মালয়েশিয়াসহ বিভিন্ন রাষ্ট্র। এবার পাকিস্তানের পাশে দাড়ানো ঘোষণা দিয়ে বিবৃতি দিয়েছে ৫০টি দেশ। ভারত সরকারের দমন নিপীড়নের বিরোধিতা করে এ ইস্যুতে পাকিস্তানের প্রতি সমর্থন জানিয়েছে দেশগুলো।

কাশ্মীরে ভারত সরকারের দমন নিপীড়নের বিরোধীতা করে এ ইস্যুতে পাকিস্তানের প্রতি সমর্থন জানিয়েছে ৫০টি দেশ। মঙ্গলবার চীন-তুরস্কসহ অর্ধশতাধিক দেশ কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানের অবস্থান সমর্থন করে যৌথ বিবৃতি প্রদান করে।

পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বরাদ দিয়ে এখবর দিয়েছে পাকিস্তানের এক্সপ্রেস ট্রিবিউন ও তুরস্কের আনাদলু এজেন্সি। 

টুইটারে দেয়া এক পোস্টে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, কাশ্মীর ইস্যুতে জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলে আজ ৫০টিরও বেশি দেশ পাকিস্তানের পক্ষে ঐতিহাসিক যৌথ বিবৃতি দিয়েছে।

যৌথ বিবৃতিতে ভারত সরকারের প্রতি পাঁচটি আহ্বান জানিয়ে বলা হয়, জাতিসংঘ সনদ, নিরাপত্তা কাউন্সিলের রেজুলেশন, মানবাধিকারের মান এবং আন্তর্জাতিক আইনের সঙ্গে একমত হয়ে ভারত শাসিত জম্মু-কাশ্মীরের মানুষের মৌলিক মানবাধিকার ও তাদের সম্মান রক্ষায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের আহ্বান থাকা উচিত। বিশেষত তাদের জীবন, স্বাধীনতা ও নিরাপত্তা অধিকারের বিষয়ে।

কাশ্মীরে যোগাযোগের ওপর বিধিনিষেধ ও অবিলম্বে কারফিউ প্রত্যাহার এবং রাজনৈতিক নেতাদের মুক্তির দাবি জানিয়েছে দেশগুলো। পাশাপাশি সেখানে অতিরিক্ত বলপ্রয়োগ ও বন্দুকের ব্যবহার বন্ধ এবং আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ও মানবাধিকার সংস্থাগুলোর বাধাহীন প্রবেশাধিকারের দাবি জানানো হয়েছে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, আমরা জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাবানা বাস্তবায়নের মাধ্যমে জম্মু-কাশ্মীর সংকটের শান্তিপূর্ণ সমাধানের প্রতি সমর্থন ব্যক্ত করছি।

 চীন-তুরস্কসহ ৫০টি দেশের সমর্থনের ঘটনাকে জাতিসংঘ মানবাধিকার কাউন্সিলে পাকিস্তানের ঐতিহাসিক সাফল্য আখ্যায়িত করেছেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

শাহ মাহমুদ কোরেশি বলেন, যৌথ বিবৃতিতে ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরে মানবাধিকার লঙ্ঘন বন্ধে জাতিসংঘ এবং ওআইসি-র অর্ধশতাধিক রাষ্ট্র ভারতের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ।

ব্রেকিংনিউজ/ এসএ