হুররিয়াত প্রধানের নতুন বার্তা, শিগগিরই কাশ্মিরের স্বাধীনতা

ভারত-পাকিস্তান ডেস্ক
১ অক্টোবর ২০১৯, মঙ্গলবার
প্রকাশিত: ০৯:৩৭ আপডেট: ১২:১৫

হুররিয়াত প্রধানের নতুন বার্তা, শিগগিরই কাশ্মিরের স্বাধীনতা

নতুন করে কাশ্মিরের জন্য বার্তা পাঠিয়েছেন রাজ্যের সর্বদলীয় হুররিয়াত কনফারেন্সের (এপিএইচসি) প্রধান সাইয়েদ আলী গিলানি। কাশ্মিরি যুবক-তরুণদের ভারতের বিরুদ্ধে চলমান প্রতিরোধ আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন তিনি।

গৃহবন্দি অবস্থা থেকে জনগণের প্রতি লেখা এক চিঠিতে এই নির্দেশনা দেন তিনি।

জাতিসংঘে ইমরান খানের ভাষণের একদিন পর রাজপথে নেমেছে কাশ্মিরি। হাজার হাজার কাশ্মিরিদের তাদের বাড়ি থেকে বের হয়ে আসে। ফলে নতুন কারে কারফিউ জারি করে ভারত সরকার। এখন গিলানার এই নির্দেশনার পর নতুন করে উত্তপ্ত হতে পারে কাশ্মির বলে বিশেষজ্ঞরা ধারণ করছেন।

কাশ্মিরিদের উদ্দেশ্যে সাইয়েদ আলী গিলানি বলেন, ‘নিজেদের অধিকার রক্ষায় আপনারা ত্যাগ স্বীকার করছেন, এ ত্যাগ কখনও নিষ্ফল হবে না। আমার দৃঢ় বিশ্বাস, অতি শিগগিরই কাশ্মির স্বাধীনতা লাভ করবে। নিজেদের আত্মপরিচয়, ধর্ম ও জাতীয়তার বিষয়ে কোনো সমঝোতা করা যাবে না। আমাদের লক্ষ্য অর্জনে জম্মু, কাশ্মির ও লাদাখের প্রতিটি নাগরিককে সীসাঢালা প্রাচীরের ন্যায় এক থাকতে হবে।’

একতরফা ও বিতর্কিত ভাবে জম্মু-কাশ্মিরের বিশেষ সাংবিধানিক অধিকার বাতিল করে রাজ্যকে কারাগারে পরিণত করে রেখেছে হিন্দ্যুতবাদী দল বিজেপি শাসিত কেন্দ্রীয় সরকার। এরপরই গৃহবন্দি করা হয় হুররিয়ত নেতা সৈয়দ আলী শাহ গিলানিকে।

স্বাধীনতাকামী এই নেতা এর আগে ভারতীয় অত্যাচারের বিরুদ্ধে শান্তিপূর্ণ প্রতিরোধ ও কাশ্মিরের স্বাধীনতার ডাক দিয়ে ৫ দফা কর্মসূচি ঘোষণা করেছিলেন তিনি।

গিলানির ৫ দফা কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে, ভারতীয় নৃশংসতার বিরুদ্ধে জম্মু-কাশ্মিরের নাগরিকদের সাহসিকতার সঙ্গে শান্তিপূর্ণ প্রতিরোধ, নিজেদের আত্মরক্ষার্তে সরকারি কর্মকর্তা ও পুলিশের প্রতিবাদ, সারাবিশ্বে ছড়িয়ে থাকা কাশ্মিরিদের দূত হিসেবে কাজ করা, কাশ্মিরিদের স্বাধীনতা সংগ্রামে প্রতিবেশী পাকিস্তানের এগিয়ে আসা এবং জম্মু ও লাদাখের বাসিন্দাদের নিজস্ব পরিচয় ধরে রাখা।

ব্রেকিংনিউজ/ এসএ 

bnbd-ads