ভারতের ৭০ কিলোমিটার ভেতরে ঢুকে পড়েছে চীনা সেনারা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার
প্রকাশিত: ১১:৫৩ আপডেট: ০১:৫৮

ভারতের ৭০ কিলোমিটার ভেতরে ঢুকে পড়েছে চীনা সেনারা

বিতর্কিত কাশ্মির নিয়ে পাকিস্তানের সঙ্গে বিরোধ যখন চরমে ঠিক এমন সময় ভারতের ভেতরে প্রবেশ শুরু করেছে চীনের সেনাবাহিনী। ইতোমধ্যে ভারতের সীমানার প্রায় ৭০ কিলোমিটার ভেতরে ঢুকে পড়েছে চীনা সেনারা। একটি ঝুলন্ত ব্রিজও তারা তৈরি করে ফেলেছে। 

অরুণাচল প্রদেশের রাজ্য বিজেপির সভাপতি অরুণাচল পূর্ব কেন্দ্রের সংসদ সদস্য টাপির গাও সম্প্রতি এমন দাবি করার পর বিষয়টি নিয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলোতে তোলপাড় শুরু হয়েছে। তবে দিল্লির পক্ষ থেকে চীনা সেনা প্রবেশের বিষয়টি অস্বীকার করা হচ্ছে। তারা বলছে, এমন কোনও প্রমাণ এখনও তাদের হাতে নেই। 

ভারতীয় সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ওই এলাকায় ভারতীয় ভূখণ্ডে চীনা সেনা বা নাগরিকের উপস্থিতির কোনও প্রমাণ মেলেনি। তবু ওই এলাকায় টহলদারি জোরদার করা হয়েছে। 

টাপির গাও দেশটির সাংবাদমাধ্যমে বলেছেন, চাগলাগামের ডিমারু নালার ওপর একটি ‘সাসপেনশন ব্রিজ’ নজরে এসেছে আদিবাসীদের। ঘন জঙ্গলে ঘেরা ওই এলাকার গাছ কেটে কাঠ দিয়ে ওই ব্রিজটি তৈরি করেছে চীনা সেনাবাহিনী। দিল্লিতে সংশ্লিষ্ট সব দফতরে তিনি বিষয়টি জানিয়েছেন।

অন্জ জেলার অন্তর্গত ডিমারু জেলায় জনবসতির চেয়ে পাহাড়, ঝর্ণা ও নালাই বেশি। অসংখ্য ‘ফিশ টেল’ প্রজাতির লম্বা গাছ ও ঘন জঙ্গলে ঘেরা ওই দুর্গম এলাকায় শিকার ও ভেষজ উদ্ভিদ সংগ্রহ করতে জনজাতি শ্রেণির কিছু মানুষের আনাগোনা রয়েছে। যদিও সেখানে ভারতীয় সেনারা রুটিম মাফিক টহল অব্যাহত রাখে সারা বছরই।

মূলত, চীন-অরুণাচল সীমান্ত ‘ম্যাকমোহন লাইন’ নামে পরিচিত। লাইন অব অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোল বা ম্যাকমোহন লাইন থেকে চাগলাগামের দূরত্ব প্রায় ১০০ কিলোমিটার। চাগলাগাম থেকে আবার ডোইমুর নালার দূরত্ব ২৫-৩০ কিলোমিটার। 

সেই হিসাবে টাপির গাওয়ের দাবি সত্যি হলে ভারতীয় ভূখণ্ডের ৬০-৭০ কিলোমিটার অভ্যন্তরে ঢুকে পড়েছে চীনা বাহিনী। দিল্লিতে বিষয়টি জানানোর পরই এ নিয়ে কার্যত তোলপাড় পড়ে যায়। ভারতীয় সেনাদের দৌড়ঝাঁপ শুরু হয়ে গেছে বলে জানা গেছে।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে দেয়া বিবৃতিতে বলা হয়, টাপির গাওয়ের দাবি ঠিক না। এ ধরনের কোনও অনুপ্রবেশের ঘটনা ঘটেনি। বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে যেখানকার কথা বলা হয়েছে, সেটা ‘ফিশ টেল’ এলাকা। অন্যান্য কয়েকটি এলাকার মতো ওই এলাকাতেও সীমান্ত নিয়ে চীনের সঙ্গে মতপার্থক্য রয়েছে। ডিমারু নালার ওপরে কোনো ব্রিজও তৈরি করতে পারেনি চীনা সেনারা। 

ব্রেকিংনিউজ/এমআর