খুলনায় ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় ৫ আসামির ফাঁসি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
১৬ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার
প্রকাশিত: ০৪:৪২ আপডেট: ০৭:২৯

খুলনায় ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় ৫ আসামির ফাঁসি

খুলনায় এক্সিম ব্যাংক কর্মকর্তা পারভীন সুলতানাকে গণধর্ষণের পর হত্যা ও একইসময়ে বৃদ্ধ বাবা ইলিয়াছ চৌধুরীকে হত্যাসহ মালামাল লুটের ঘটনায় করা দুই মামলায় ৫ জনকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। 

মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) দুপুরে খুলনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৩ এর বিচারক মো. মহিদুজ্জামান এ রায় দেন। 

ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- সাইফুল ইসলাম পিটিল, তার ভাই শরিফুল ইসলাম, মো. লিটন, আজিজুর রহমান পলাশ ও আবু সাঈদ। এর মধ্যে ঘটনার পর থেকেই শরিফুল পলাতক আছেন। অপর চার আসামি রায় ঘোষণার সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন। 

এদিন রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন বিশেষ পিপি অ্যাডভোকেট ফরিদ আহমেদ। এছাড়া তাকে সহযোগিতা করেন বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থার জেলা সমন্বয়কারী অ্যাডভোকেট মো. মোমিনুল ইসলাম ও অ্যাডভোকেট কাজী সাব্বির আহমেদ।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর রাতে মহানগরীর বুড়ো মৌলভীর দরগা এলাকায় ৩ নম্বর সড়কের ইলিয়াছ চৌধুরীর ‘ঢাকাইয়া হাউজ’ নামের বাড়িতে ঢুকে বৃদ্ধ ইলিয়াছ চৌধুরীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। এরপর ৫ জন মিলে পারভীনকে গণধর্ষণ করে তাকেও শ্বাসরোধ করে হত্যা করে লাশ গুম করার জন্য সেফটি ট্যাংকে ফেলে দেয়। সেইসঙ্গে স্বর্ণালংকার ও নগদ টাকাসহ বেশ কিছু মালামাল লুট করে। 

এ ঘটনার পরদিন ২০ সেপ্টেম্বর নিহত ইলিয়াছ চৌধুরীর ছেলে রেজাউল আলম চৌধুরী বিপ্লব বাদী হয়ে লবণচরা থানায় হত্যা ও ২২ সেপ্টেম্বর ধর্ষণ মামলা করেন। 

এর একদিন পর ২১ সেপ্টেম্বর আসামি মো. লিটন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। পরে আসামি সাঈদও জবানবন্দি নেন আদালত। 

এদিকে আদালতের দেয়া রায়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে ফাঁসির রায় দ্রুত কার্যকরের দাবি জানিয়েছেন মামলার বাদী রেজাউল আলম চৌধুরী বিপ্লব।

ব্রেকিংনিউজ/এমআর