নাইকো মামলায় আদালতে যাননি খালেদা, পরবর্তী শুনানি ৬ মে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
২৩ এপ্রিল ২০১৯, মঙ্গলবার
প্রকাশিত: ০৩:২৭ আপডেট: ০৪:১৯

নাইকো মামলায় আদালতে যাননি খালেদা, পরবর্তী শুনানি ৬ মে

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকায় নাইকো দুর্নীতি মামলায় আদালতে হাজির করা হয়নি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে। 

মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) বেগম জিয়ার অনুপস্থিতিতে মামলাটির অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য আগামী ৬ মে দিন ধার্য করেছেন আদালত। 

পুরান ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থাপিত বিশেষ জজ-৯ আদালতের বিচারক শেখ হাফিজুর রহমান এ আদেশ দেন।

আদালতে আজ বেগম জিয়ার আইনজীবীরা অভিযোগ গঠনের শুনানি পেছানোর আবেদন জানিয়ে আদালতে বলেন, খালেদা জিয়া শারীরিকভাবে অসুস্থ। তিনি হাসপাতালের চিকিৎসাধীন। এই অবস্থায় শুনানিতে হাজির হওয়া তাঁর পক্ষে সম্ভব না।

এর আগে গত ১২ ফেব্রুয়ারি আইনজীবীদের করা এক আবেদনের প্রেক্ষিতে অসুস্থ বিএনপি চেয়ারপারসনকে গত ১ এপ্রির বিএসএমএমইউতে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে সেখানেই চিকিৎসাধীন আছেন বেগম জিয়া।

২০০৭ সালের ৯ ডিসেম্বর তেজগাঁও থানায় কানাডার কোম্পানি নাইকোর সঙ্গে অস্বচ্ছ চুক্তির মাধ্যমে রাষ্ট্রের বিপুল আর্থিক ক্ষতিসাধন ও দুর্নীতির অভিযোগে খালেদা জিয়াসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে দুদকের সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ মাহবুবুল আলম নাইকো দুর্নীতি মামলাটি করেন।

পরে ২০০৮ সালের ৫ মে এ মামলায় খালেদা জিয়াসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন দুদকের সহকারী পরিচালক এস এম সাহেদুর রহমান।

অভিযোগপত্রে প্রায় ১৩ হাজার ৭৭৭ কোটি টাকার রাষ্ট্রীয় ক্ষতির অভিযোগ আনা হয়।

এ মামলার অন্য আসামিরা হলেন সাবেক আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, সাবেক জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী এ কে এম মোশাররফ হোসেন, সাবেক মুখ্য সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সচিব খন্দকার শহীদুল ইসলাম, সাবেক সিনিয়র সহকারী সচিব সি এম ইউছুফ হোসাইন, বাপেক্সের সাবেক মহাব্যবস্থাপক মীর ময়নুল হক, সাবেক সচিব মো. শফিউর রহমান, ব্যবসায়ী গিয়াসউদ্দিন আল মামুন, ঢাকা ক্লাবের সাবেক সভাপতি সেলিম ভূঁইয়া ও নাইকোর দক্ষিণ এশিয়াবিষয়ক ভাইস প্রেসিডেন্ট কাশেম শরীফ।

ব্রেকিংনিউজ/এমআর

bnbd-ads
bnbd-ads