bnbd-ads
bnbd-ads

রংপুরে কলেজছাত্রী তন্দ্রাকে আত্মহত্যার প্ররোচনার মামলায় ৫ আসামির কারাদণ্ড

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, রংপুর
২১ মে ২০১৯, মঙ্গলবার
প্রকাশিত: ০৮:০০

রংপুরে কলেজছাত্রী তন্দ্রাকে আত্মহত্যার প্ররোচনার মামলায় ৫ আসামির কারাদণ্ড

রংপুর নগরীর রবার্টসনগঞ্জ মন্ডলপাড়া গ্রামে কলেজ ছাত্রী রুমানা আফরোজ তন্দ্রাকে শ্লীলতাহানি ও আত্মহত্যার প্ররোচনার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় দীর্ঘ ২৪ বছর পর মামলার রায়ে ৫ আসাসিকে ১৩ বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেছে আদালত। 

মঙ্গলবার (২১ মে) দুপুরে রংপুরের নারী শিশু নির্যাতন দম ট্রাইবুনালের বিচারক জাবিদ হোসেন জনাকীর্ণ আদালতে এ রায় ঘোষণা করেন। 

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ১৯৯৬ সালের ১ জুলাই তারিখে ঢাকার মীরপুরের আইডিয়াল কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী রুমানা আফরোজ তন্দ্রা রংপুর নগরীর রবার্টসনগঞ্জ মন্ডলপাড়া গ্রামে তার বাবার বাড়ির সামনে সন্ধার দিকে একটি দোকানে দিয়াশলাই কেনার জন্য গেলে দোকানের পেছনে দাঁড়িয়ে থাকা আসামি মানিক তন্দ্রাকে জাপটে ধরে। এ সময় তন্দ্রা চিৎকার দিলে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে সামনে সকলের সামনে আসামি মানিকসহ তার সঙ্গীরা পুনরায় তন্দ্রাকে ঘাড়ে তুলে অপহরণ করার চেষ্টা করে। এ সময় তার শ্লীলতাহানি করে। 

এরপর সে দৌড় দিয়ে বাসায় এসে একটি কুড়াল নিয়ে আসামিদের প্রতিরোধ করার চেষ্টা করে। এ সময় আসামিরা তন্দ্রাকে মারধর করে পরনের কাপড় ছিড়ে ফেলে এবং তার ওড়না কেড়ে নেয়। এ ঘটনায় লোক লজ্জার ভয়ে এবং ক্ষোভে অভিমানে তন্দ্রা বাড়ির ছাদে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে। 

এ ঘটনায় তার মা মাসুদা চৌধুরী বাদী হয়ে আসামি মানিক, রতন, বাবলা, রানা ও মালেকা বেগমকে আসামি করে কোতয়ালী থানায় মামলা দায়ের করে। তদন্ত করে পুলিশ আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করে। দীর্ঘ ২৪ বছর ধরে মামলাটি বিচারের নামে বিলম্ব করা হয়। 

অবশেষে মঙ্গলবার দুপুরে জনাকীর্ণ আদালতে ৫ আসামিকে দোষী সাব্যস্ত করে ১৩ বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেন বিচারক। 

এদিকে সরকার পক্ষে মামলা পরিচালনাকারী নারী ও শিশু নির্যাতন আদালতের বিশেষ পিপি জাহাঙ্গীর হোসেন তুহিন বলেন, ‘এই মামলাটি আসামিরা বিভিন্ন ভাবে বিচার বিলম্বিত করার চেষ্টা করেছে। তার পরেও ২৪ বছর পর বিজ্ঞ বিচারক তাদের সাজা দিয়েছেন বাদী পক্ষ ন্যায় বিচার পেয়েছে।’

ব্রেকিংনিউজ/এসআর/জেআই