মাসুদা ভাট্টির মামলায় ব্যারিস্টার মইনুলের জামিন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, রবিবার
প্রকাশিত: ০৩:৩০ আপডেট: ০৪:৫৯

মাসুদা ভাট্টির মামলায় ব্যারিস্টার মইনুলের জামিন

সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টির মানহানির মামলায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম উদ্যোক্তা ও সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে জামিন দিয়েছেন আদালত।

রবিবার (৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ঢাকা মহানগর হাকিম তোফাজ্জল হোসেনের আদালত এই আদেশ দেন।

আদালতে তার পক্ষে শুনানি করেন ঢাকা বারের সাবেক সভাপতি গোলাম মোস্তাফা, আইনজীবী আমিনুল ইসলাম ও মহিউদ্দিন চৌধুরী।

এর আগে মঙ্গলবার (৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরে একই আদালতে আত্মসমর্প করে জামিন আবেদন করেন ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন। শুনানি শেষে আদালত তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

জানা গেছে, ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন সবগুলো মামলায় জামিনে রয়েছেন। সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টি নিজে বাদী হয়ে ঢাকা মহানগর হাকিম তোফাজ্জল হোসেনের আদালতে মামলাটি করেছিলেন। এই মামলাতেও ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন উচ্চ আদালত থেকে জামিন পেয়েছেন।

সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের নির্দেশনা ছিল, সংশ্লিষ্ট আদালতে আত্মসমর্পন করে উচ্চ আদালতের দেয়া জামিনের বিষয়ে অবহিত করতে হবে। সেই সঙ্গে পুনরায় নিম্ন আদালত থেকে জামিন নিতে হবে।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ১৬ অক্টোবর মধ্যরাতে বেসরকারি টেলিভিশন ‘একাত্তরে’ টক শোতে মাসুদা ভাট্টি লাইভে যুক্ত হওয়া ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে প্রশ্ন করেন- ‘আপনি সদ্য গঠিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে এসে জামায়াতের প্রতিনিধিত্ব করছেন কি না?’

মইনুল হোসেন এ প্রশ্ন শুনে উত্তেজিত হন এবং বলেন ‘এমন প্রশ্ন করায় আপনাকে আমি চরিত্রহীন বলে মনে করছি।’

গত বছরের ১৬ অক্টোবর রাতে একটি বেসরকারি টেলিভিশনে এক নারী সাংবাদিককে করা মন্তব্য নিয়ে তার বিরুদ্ধে ঢাকার আদালতে মানহানির মামলা করেন ওই সাংবাদিক। পরে ২২ অক্টোবর পুলিশের ডিটেকটিভ ব্রাঞ্চ ব্যারিস্টার মইনুলকে রাত পৌনে ১০টার দিকে রাজধানীর উত্তরায় জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আবদুর রবের বাসা থেকে গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনায় সারা দেশে তার বিরুদ্ধে ২৩টি মামলা হয়েছে। 

সবগুলো মামলায় জামিন হলে গত ২৭ জানুয়ারি রাত ৯টার দিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় মুক্তি পান।

ব্রেকিংনিউজ/ এসএ